আজ কালনা–বহরমপুর জোড়া জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কী কী বললেন

আজ কালনা–বহরমপুর জোড়া জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কী কী বললেন
আজ কালনা–বহরমপুর জোড়া জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কী কী বললেন / ছবি সৌজন্য : Screengrab from Facebook Video Posted By @MamataBanerjeeOfficial

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ রাজ্যের দৌড়গোড়ায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। রাজ্যের শাসক দলে কে আধিপত্ত বিস্তার করবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিরোধ। রাজনৈতিক দলগুলি তাঁদের অবস্থান পাকাপক্ত করতে ইতিমধ্যেই আসরে নেমে পড়েছে। চলছে তৃণমূল-বিজেপি বিরোধ। যেকোন সভায় দুই দলের নেতারা একে অপরকে ক্রমাগত আক্রমণ করে চলেছেন। শেষ পর্যন্ত কে হাসবে শেষ হাসি তা দেখার জন্য অপেক্ষায় রাজ্যবাসী। বিধানসভার ভোটের ফলাফলেই জানা যাবে কে হবে বাংলার শাসক।

তবে আসন্ন ভোটের আগেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আজ কালনা, মাটি উৎসব সহ বহরমপুরের সভায় যোগ দেন। এদিন প্রথমেই তিনি হাজির হন কালনায়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলে সদ্য যুক্ত হওয়া সদস্য চন্দননগরের প্রাক্তন সিপি হুমায়ুন কবির। এদিন কালনার সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপিকে নিশানা করে বলেন, বিজেপি বিজেপি বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙে এমনকি চৈতন্যদেব নিয়েও ভুল তথ্য দেয়। কোনও ধর্মকে সম্মান করে না বিজেপি। এভাবেই নানা ভাবে তীব্র আক্রমণ করলেন বিজেপিকে।

এরপর কালনা সভা শেষ করে তিনি পৌঁছে যান মাটি উৎসবে। তারপর মাটি উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তারপর মাটি উৎসবের মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, কৃষকদেরই অধিকার রয়েছে মাটির ওপর। উল্লেখ্য রাজ্যের প্রায় ৭৩ লক্ষ কৃষক ‘কৃষক বন্ধু’ প্রকল্পের আওতায় আসতে চলেছে। এছাড়া তিনি বলেন চলতি বছর থেকে, ভাগ চাষিরা ৩ হাজার টাকা ও কৃষকরা ৬ হাজার টাকা করে পাবেন। অন্যদিকে তিনি বলেন, কেন্দ্র বাংলার থেকে কম ধান কিনলেও, চাষিদের চিন্তা নেই, রাজ্য তাদের কাজ থেকে ধান কিনবে। এছাড়া কৃষকদের প্রতি অন্যায় করা হচ্ছে বলেও কেন্দ্র সরকার কে নিশানা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এরপর মাটি উৎসব থেকে যান বহরমপুরে। তারপর সেখানের জনসভায় যোগ দেন তিনি। বহরমপুরের সভায় তিনি মীরজাফরের কথা উল্লেখ করে বলেন, সেসময় মীরজাফর গদ্দারি করেছিল, এখনও রাজ্যে কিছু দুষ্ট আছে বিজেপিতে, যারা কয়লা পাচার, গরু চুরি করে অনেক অর্থ জমিয়েছে। এছাড়া তিনি বিজেপিকে ওয়াশিং মেশিনের সাথে তুলনা করে বলেন, বিজেপিতে কালোরা যাচ্ছে আর সাদা হয়ে বেরিয়ে আসছে। অন্যদিকে তিনি বলেন এখনও পর্যন্ত জনগনের বিরুদ্ধে তিনি কোনও সিদ্ধান্ত নেননি। এছাড়া বলেন, বিজেপি বাংলা কে চেনেনা, এমনকি বাংলার মনীষীদের সম্পর্কেও জানে না। এছাড়া এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানান, তিনি যতদিন বাঁচবেন রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার হয়েই বাঁচবেন। আজ কালনা সবা থেকে আরও নানা ভাবে বাম-বিজেপিকে আক্রমণ করেন তিনি। আজ মুখ্যমন্ত্রী তাঁর তিন সভায় নানা ভাবে বিজেপি কে আক্রমণ করেছেন। বিধানসভা ভোটের আগে উত্তপ্ত বাংলার রাজনীতির ক্ষেত্র।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.