নন্দীগ্রামের সভা থেকে কী বক্তব্য রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, দেখে নিন একনজরে

নন্দীগ্রামের সভা থেকে কী বক্তব্য রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, দেখে নিন একনজরে
নন্দীগ্রামের সভা থেকে কী বক্তব্য রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি, দেখে নিন একনজরে / ছবি সৌজন্যে : Screengrab from Facebook Video Post By @MamataBanerjeeOfficial

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ রাজ্যের দৌড়গোড়ায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। রাজ্যের শাসক দলে কে আধিপত্ত বিস্তার করবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিরোধ। রাজনৈতিক দলগুলি তাঁদের অবস্থান পাকাপক্ত করতে আসরে নেমে পড়েছে। তারসাথে তৃণমূল শিবিরও প্রকাশ করেছে তাদের প্রার্থী তালিকা। আর তারপরই জানা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি আসন্ন নির্বাচনে নন্দীগ্রাম থেকেই লড়বেন। একথা তিনি প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার আগেই নন্দীগ্রামের সভাতেই জানিয়েছিলেন। এরপর প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর আজ কর্মী সম্মেলনে নন্দীগ্রামে হাজির হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। অন্যদিকে আগামীকাল তিনি মনোনয়ন পথ জমা দেবেন তা পূর্বেই জানা গিয়েছিল। আজ নন্দীগ্রাম সভা থেকে কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি দেখে নিন একনজরে..

আজ নন্দীগ্রাম কর্মী সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, নন্দীগাম গোটা বিশ্বে পৌঁছে গেছে। নন্দীগ্রামের মানুষের মধ্যে ভাগাভাগি হয় না বলে জানান তিনি। এছাড়া তিনি বলেন, দেশের রাজধানীতেও তিনি নন্দীগ্রামের মানুষের কথা পৌঁছে দিয়েছেন। এরসাথেই তিনি বলেন তিনি নিজের নাম ভুললেই কোনোদিন নন্দীগ্রামের নাম ভুলবেন না। তিনি জানান যে তিনি মাথায় রেখেছিলেন সিঙ্গুর বা নন্দীগ্রাম যেকোন একটি জায়গা থেকেই আসন্ন বিধানসভা ভোটে লড়বেন।

অন্যদিকে তিনি বলেন, নন্দীগ্রামে হাসপাতাল-কলেজ থেকে শুরু করে জল প্রকল্প সবই সম্পন্ন হয়েছে। আগামিদিনে তিনি আরও উন্নতি করবেন। তিনি বলেন তিনি যা কথা দেন, তিনি সেকথা রাখেন। এখন তিনি নন্দীগ্রামে বাড়ি ভাড়া নিয়েছেন, পরে তিনি কুঁড়ে ঘর বানিয়ে নেবেন বলেই জানান তিনি। এরসাথেই তিনি নন্দীগ্রামের মানুষদের নানা চক্রান্ত থেকে সতর্ক থাকার কোথাও উল্লেখ করেন। এছাড়া তিনি বিজেপিকে নিশানা করে হিন্দুত্ব নিয়ে বলেন, তিনি হিন্দু ঘরের মেয়ে, তাঁকে হিন্দুত্ব বোঝানোর প্রয়োজন নেই। তারপরই তিনি চণ্ডীপাঠ করেন। নন্দীগ্রামের মানুষদের বলেন ১ লা এপ্রিল ভোট, এদিন গেরুয়া শিবির কে এপ্রিল ফুল করে দেওয়ার কথা বলেন তিনি।

উল্লেখ্য ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৭ মার্চ থেকেই বাংলার শুরু হবে নির্বাচন। আর নির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রীর নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা কতটা প্রভাব ফেলবে নির্বাচনে তা সময় বলবে। কে হবে বাংলার শাসক? কে হাসবে শেষ হাসি তা শুধুমাত্র নির্বাচনের ফলাফলই বলবে। শেষমেশ কে বাংলার শাসকের স্থান দখল করবে তা দেখার জন্য অপেক্ষায় রাজনৈতিক মহল সহ জনগন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.