‘বাংলায় এনপিআর হবে না’! গড়বেতার জনসভা থেকে আর কী বক্তব্য রাখলেন মমতা ব্যানার্জি

'বাংলায় এনপিআর হবে না'! গড়বেতার জনসভা থেকে আর কী বক্তব্য রাখলেন মমতা ব্যানার্জি
'বাংলায় এনপিআর হবে না'! গড়বেতার জনসভা থেকে আর কী বক্তব্য রাখলেন মমতা ব্যানার্জি / ছবি সৌজন্যে : Screengrab from Facebook Video Posted By @MamataBanerjeeOfficial

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ রাজ্যের দৌড়গোড়ায় ২০২১ এর বিধানসভা ভোট। রাজ্যের শাসক দলে কে আধিপত্ত বিস্তার করবে তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিরোধ। রাজনৈতিক দলগুলি তাঁদের অবস্থান পাকাপক্ত করতে ইতিমধ্যেই আসরে নেমে পড়েছে। চলছে তৃণমূল-বিজেপি বিরোধ। এরমধ্যে তৃণমূল শিবির প্রকাশ করেছে তাদের প্রার্থী তালিকা। আর এবার নির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি লড়বেন নন্দীগ্রাম থেকে। ইতিমধ্যে তিনি মনোনয়ন পত্র জমাও দিয়েছেন। তবে তারপরই নন্দীগ্রামে এক দুর্ঘটনার কবলে পরেন তিনি। তাঁর জেরে তিনি পায়ে আঘাত পান। তারপরই চিকিৎসা শুরু হয়। বর্তমানে তাঁর একটি পা প্লাস্টার করা হয়েছে।

তবে তিনি তাতেও দমে থাকেননি। প্লাস্টার করা পা নিয়েই হুইলচেয়ারে করে নির্বাচনের প্রচারে যোগ দিয়েছে। আজ নির্বাচনী প্রচারে তিনি উপস্থিত হয়েছেন পশ্চিম মেদিনীপুরে। সেখানে ৩ টি জনসভা করবেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রথম নির্বাচনী সভা করবেন গড়বেতা বিধানসভা এলাকার গোয়ালতোড়ের আমলাশুলিতে। দ্বিতীয় সভা কেশিয়াড়ি বিধানসভার ঔরঙ্গাবাদে। এবং সেখান থেকে তিনি যাবেন খড়গপুর গ্রামীণ বিধানসভা এলাকায়। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের নজরে পশ্চিম মেদিনীপুর আসন।

আজ গড়বেতার জনসভা থেকে কী বক্তব্য রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী একনজরে দেখে নিন.. আজ তিনি সভার শুরুতেই বলেন, এই নির্বাচন দিল্লির নয়, বিজেপির নয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীরও নয়। এই নির্বাচন বাংলার। তার আপনারা যদি আমাকে চান, আপনারা যদি চান আমি আবার সরকার গঠন করি, তাহলে এখানে যে প্রার্থী রয়েছে তাঁকে সকলে একটি করে ভোট দিন। আজ বিজেপি কে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ঘরের বাইরে লুকিয়ে থাকা বাঘ, সাপকে ঘরে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। এছাড়া তিনি বললেন নির্বাচন সম্মুখে এলেই গেরুয়া সিবির ক্যাশ নিয়ে বেরিয়ে পরেন। অন্যদিকে আজ তিনি বলেন, এবার ক্ষমতায় এলে তিনি সকল তফশিলী পরিবারকে ১০০০ টাকা করে দবেন। এছাড়া তিনি জানান স্কুল পড়ুয়াদের বিনামুল্যে সাইকেল, ও দ্বাদশ শ্রেনীর পড়ুয়াদের পড়াশোনার সুবিধার্থে ট্যাব কেনার জন্য ১০০০০ টাকা করে দেবেন।

অন্যদিকে তিনি বলেন ভোট লুট করার চেষ্টা করছে বহু নেতা। তাঁরা এলে হাতা-খুন্তি নিয়ে প্রতিবাদ করবেন। এছাড়া তিনি বলেন বাংলায় এনপিআর হবে না। এই ভাবে আজ গড়বেতার সভা থেকে তিনি নানা ভাবে নিশানা করেন গেরুয়া শিবিরের দিকে। উল্লেখ্য ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন বিধানসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৭ মার্চ থেকেই বাংলার শুরু হবে নির্বাচন। কে হবে বাংলার শাসক? কে হাসবে শেষ হাসি তা শুধুমাত্র নির্বাচনের ফলাফলই বলবে। শেষমেশ কে বাংলার শাসকের স্থান দখল করবে তা দেখার জন্য অপেক্ষায় রাজনৈতিক মহল সহ জনগন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.