পেয়ারার এই সকল পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানেন কি!

পেয়ারার এই সকল পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানেন কি!
পেয়ারার এই সকল পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জানেন কি!

পেয়ারা একটি বেরি জাতীয় ফল। এর প্রায় শতাধিক প্রজাতি রয়েছে পেয়ারার। বছরের এই সময়ে দেশে সব থেকে বেশি পেয়ারা উৎপাদন হয়। তাই বেশি-বেশি পেয়ারা খাওয়ার এটাই সঠিক সময়। যদিও গ্রামে গঞ্জে পেয়ারা বেশ সহজলভ্য হলেও শহর এলাকায় পেয়ারা কিনেই খেতে হয়। আর বর্তমানে পেয়ারার দাম তো আপেলকেও ছাড়িয়ে গেছে। যদিও আপেলের থেকে পেয়ারার স্বাস্থ্যগুন অনেক বেশি। কারণ-দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে পেয়ারা। এটি মোটামুটি সর্বগুণসম্পন্ন একটি ফল।

পেয়ারাতে ফাইবার বা আঁশ এবং গ্লাইসেমিক সমৃদ্ধ। এছাড়া ফাইবার এবং আঁশ থাকার কারণে পেয়ারা খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়। পেয়ারা ডায়াবেটিস রোগীদের পক্ষেও অত্যন্ত উপকারি একটি ফল। কোলেস্টেরল, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে এই ফল। দৃষ্টিশক্তি বাড়ায় এবং চোখের ছানিপড়া রোধ করে।

হৃদরোগ হওয়ার ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যায় পেয়ারা সেবনে গর্ভবতী নারীদের জন্যও বিশেষভাবে উপকারি এটি। কোনো খাবারে রুচি না থাকলে তখন খাবারের রুচি বাড়াতেও খেতে পারেন পেয়ারা। মেদ বা ওজন কমাতে বেশি বেশি ফাইবারযুক্ত বা অধিক তন্তুযুক্ত খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন পুষ্টিবিদরা। ১০০ গ্রাম পেয়ারায় মাত্র ৮ দশমিক ৯২ গ্রাম চিনি থাকে।

তাই ওজন কমাতে চাইলে বিকেলের খাবারে ভাজাপোড়া বাদ দিয়ে যোগ করে ফেলুন পেয়ারা। মহামারি করোনাকালে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও জুড়ি নেই পেয়ারার। তাই অন্যান্য ফলের তুলনায় পেয়ারাকে গুরুত্ব দিন একটু বেশি। আর আজ থেকেই শুরু করুন খাওয়া।