অধিনায়ক থাকাকালীন শচীন দিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলীর কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুমকি, কেনো জেনে নিন

অধিনায়ক থাকাকালীন শচীন দিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলীর কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুমকি, কেনো জেনে নিন

শুধু ভারতীয় ক্রিকেটেই নয় বরং বিশ্ব ক্রিকেটেও শচীন তেন্ডুলকর এক বড়ো নাম। ভারতের ক্রিকেট ভগবান বলে পরিচিত শচীন তেন্ডুলকরের ব্যাটিং ক্ষমতা দিয়ে কারো মনেই কোনো প্রশ্ন নেই। নিজের ব্যাটিংয়ে রেকর্ডের পর রেকর্ড বানানো শচীন তেন্ডুলকর ব্যাটসম্যান হিসেবে তো কিংবদন্তী থেকেছেন। কিন্তু অধিনায়কত্বে তিনি সম্পূর্ণ ব্যর্থ। অধিনায়ক শচীন ভারতের হয়ে সেই কৃতিত্ব দেখাতে পারেননি যা তিনি ব্যাটসম্যান হিসেবে দেখিয়েছেন। দুই ফর্ম্যাট মিলিয়ে ৯৮টি ম্যাচে অধিনায়কত্ব করা শচীন তেন্ডুলকর মাত্র ২৭টি ম্যাচেই ভারতকে জয় এনে দিতে পেরেছেন। তার অধিনায়কত্বে জয়ের হার মাত্র ২৮ শতাংশই থেকেছে।

১৯৯৭তে শচীনের অধিনায়কত্বেই ওয়েস্টইন্ডিজ সফরে গিয়েছিল ভারতীয় দল। যা শচীন তেন্ডুলকরের অধিনায়কত্বের সবচেয়ে খারাপ সফর ছিল। ওই সফরে বার্বাডোজে খেলা হওয়া ম্যাচে ভারতীয় দলকে লজ্জাজনকভাবে হারতে হয়েছিল। যার পর ক্ষুব্ধ শচীন সৌরভ গাঙ্গুলীকে কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুমকী দেন। আসলে বার্বাডোজ টেস্টে ওয়েস্টইন্ডিজ চতুর্থদিন ভারতকে ১২০ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল। কিন্তু পঞ্চমদিন ফ্ল্যাট পিচে ভারতের দল মাত্র ৮০ রানেই শেষ হয়ে যায়। জয় সম্পর্কে নিশ্চিত শচীন তেন্ডুলকর একটি রেস্তোরার মালিককে শ্যাম্পেন পর্যন্ত অর্ডার দিয়ে ফেলেছিলেন। কিন্তু হারের পর শচীন রাগ ধরে রাখতে পারেননি। সেই সময় দলে নতুন আসা সৌরভ গাঙ্গুলী শচীনকে স্বান্তনা দিতে গেলে শচীন তাকে পর দিন সকালে দৌড়তে যাওয়ার জন্য তৈরি থাকতে বলেন। কিন্তু সৌরভ সেই কথা মানেননি, এবং দৌড়তে যাননি। এরপরই শচীন সরাসরি সৌরভকে সফরের মাঝপথে বাড়িতে ফেরত পাঠানো আর কেরিয়ার শেষ করে দেওয়ার হুমকী দেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.