শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথের অসম্পূর্ণ ভোট কবে হবে? দিন ঘোষণা করল কমিশন

শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথের অসম্পূর্ণ ভোট কবে হবে? দিন ঘোষণা করল কমিশন
শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথের অসম্পূর্ণ ভোট কবে হবে? দিন ঘোষণা করল কমিশন / প্রতীকী ছবি

চতুর্থ দফার নির্বাচনের অশান্তির জেরে শীতলকুচি ১২৬ নম্বর বুথে ভোট গ্রহণ স্থগিত করেছিল নির্বাচন কমিশন। সেই স্থগিত হয়ে যাওয়া ভোট অষ্টম দফার সঙ্গে অর্থাৎ ২৯এপ্রিল হবে বলে জানিয়ে দিলো নির্বাচন কমিশন। সোমবার এক বিজ্ঞপ্তি জারি করে একথা জানানো হয়েছে মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের তরফে।

ওই বিবৃতিতে জানানো হয়েছে শীতলকুচি ১২৬ নম্বর বুথ অর্থাৎ আমতালি মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রে ২৯ এপ্রিল ভোটগ্রহণ হবে পুনরায়। সকাল সাতটা থেকে ৬.৩০টা পর্যন্ত চলবে ভোট গ্রহণ পর্ব। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট জেলা শাসককে নির্দেশ দিয়ে আরও জানানো হয়েছে, নির্বাচনের আগেই যথাসম্ভব এই ঘোষণার প্রচার করে দিতে হবে। যাতে ওই কেন্দ্রের প্রত্যেকটি ভোটার জানতে পারেন ২৯ তারিখ পুনরায় ভোটগ্রহণ রয়েছে। এছাড়াও ওই কেন্দ্রের রিটার্নিং অফিসার এবং পোলিং এজেন্টদের এই বিষয়ে অবগত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শীতলকুচিতে ভোট স্থগিত হয়ে যাবার পরেই জল্পনা উঠেছিল, স্থগিত হয়ে যাওয়া ভোট কবে হবে তা নিয়ে। পরে সেখানে উপনির্বাচন হবে কিনা সেই জল্পনাও তৈরি হয়েছিল। তবে এদিন কমিশনের এই নির্দেশের পর সেই সমস্ত জল্পনার অবসান হলো।

শনিবার চতুর্থ দফার ভোটে সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কোচবিহারের শীতলকুচি। প্রথমে ভোটের লাইনে ভোট দিতে দাঁড়িয়ে গুলিতে মৃত্যু হয় এক যুবকের। এই ঘটনায় ওই যুবককে তৃণমূল-বিজেপি উভয়পক্ষই নিজেদের দলের সমর্থক বলে দাবি করে। ঘটনায় একজনকে আটক করে পুলিশ।

এর কিছুক্ষণ পরেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ জন প্রাণ হারায় শিতলকুচির জোরপাটকি এলাকার ১২৬ নম্বর বুথে। গোটা ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ সহ রিপোর্ট তলব করেন উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। এর পরেই রিটার্নিং অফিসার মুখ্য নির্বাচন কমিশনার আরিজ আফতাব এবং বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবেকে রিপোর্ট দিয়ে জানান, নিজেদের আত্মরক্ষার স্বার্থে গুলি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।

এই প্রাথমিক রিপোর্ট পাওয়ার পরেই নির্বাচন কমিশন ওই এলাকায় বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ স্থগিত করে দেয়। কমিশনের তরফে জানানো হয়, ভোট স্থগিত করার আগের মুহূর্ত পর্যন্ত যাদের ভোট নেওয়া হয়েছে সেই ভোট সুরক্ষিত থাকবে। কিন্তু এদিন বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে ওই বুথে পুনরায় প্রথম থেকে ভোটগ্রহণ হবে। অর্থাৎ যাদের ভোট দেওয়া হয়ে গিয়েছিল তারা আবার নতুন করে ভোট দিতে পারবেন।

এরপরে তৃণমূলের সংসদীয় দল নির্বাচন কমিশনে এসে শীতলকুচিতে পাঁচ জনের মৃত্যুর ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে জানায়, পরেরদিন রবিবার সারা রাজ্য জুড়ে কালো ব্যাজ পড়ে পদযাত্রা হবে তৃণমূলের। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন।

কিন্তু তার আগেই শনিবার রাতে নির্দেশিকা জারি করে কমিশন জানিয়ে দিয়েছিল, সেইদিনের পর থেকে আগামী ৭২ ঘন্টা ওই জেলার ভৌগোলিক সীমানার মধ্যে জাতীয় বা আঞ্চলিক বা কোনো রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.