কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের পরই ছাড়ছেন টি-২০-র নেতৃত্ব! কোহলির সিদ্ধান্তে হতবাক এই উইন্ডিজ কিংবদন্তি

কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের পরই ছাড়ছেন টি-২০-র নেতৃত্ব! কোহলির সিদ্ধান্তে হতবাক এই উইন্ডিজ কিংবদন্তি
কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের পরই ছাড়ছেন টি-২০-র নেতৃত্ব! কোহলির সিদ্ধান্তে হতবাক এই উইন্ডিজ কিংবদন্তি

খুব শিগগিরই টি-২০ ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব ছাড়তে চলেছেন বিরাট কোহলি। গত বৃহস্পতিবারই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে তিনি জানান, আসন্ন কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের পরই টি-২০ ক্যাপ্টেন্সি ছাড়বেন তিনি। ভারতের হয়ে তাঁকে আর টি-২০ ক্রিকেটে নেতৃত্ব দিতে দেখা যাবে না। অধিনায়ক হিসেবে বাড়তি চাপ থেকে মুক্তি পেতেই তাঁর এই সিদ্ধান্ত বলে জানা গিয়েছে। তবে বিরাটের এই সিদ্ধান্তে কার্যত হতবাক প্রাক্তন উইন্ডিজ কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা। ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফর্ম্যাটের অধিনায়ক হিসেবে আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপই যে কোহলির শেষ অভিযান, তা যেন কিছুতেই মানতে পারছেন না এই প্রাক্তন ক্রিকেটার।

সম্প্রতি এক স্পোর্টস ওয়েবসাইটে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লারা জানিয়েছেন, “কোহলির সিদ্ধান্তে আমি সত্যিই হতবাক। ও অধিনায়ক হিসেবে দুরন্ত কাজ করেছে। দক্ষিণ আফ্রিকা, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো সব বড় বড় দলকে হারিয়েছে। এবার ক্যাপ্টেন হিসেবে এটাই কোহলির প্রথম টি-২০ বিশ্বকাপ। আবার এরপরেই ও টি-২০ অধিনায়কত্ব ছাড়তে চলেছে। এই বিষয়টিই আমাকে অবাক করেছে। আমি চমকে গিয়েছি।”

পাশাপাশি নিজের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নিয়ে তিনি আরও বলেন, “আমারও একাধিকবার এরকম ঘটেছিল। নিজের কেরিয়ারে আমিও চাপের জন্য বারবার অধিনায়কত্ব ছেড়েছি। আমি যদিও কোহলির জায়গায় নেই, তবে এটুকু বলতে পারি ও ব্যক্তিগত কারণে এই সিদ্ধান্ত নেয়নি। ভারতীয় ক্রিকেটের ভাল হবে ভেবেই অধিনায়কত্ব থেকে সরে আসছেন। তবে ও যেরকম তীব্রতার সঙ্গে ক্রিকেট খেলে, সেখান থেকে সরে আসাটা হয়তো ঠিক। এবার হয়তো অন্য ফর্ম্যাটগুলির খেলায় ও ক্যাপ্টেন্সিতে মনোনিবেশ করবে।”

উল্লেখ্য, ছোট ফর্ম্যাটের ক্রিকেটে ক্যাপ্টেন ও ব্যাটসম্যান হিসেবে দারুন সফল তিনি। টি-২০ অধিনায়ক হিসাবে বিরাটের জয়ের রেকর্ড ৬৬.৪৪ শতাংশ। তালিকায় তিনি দ্বিতীয় স্থানে। তা সত্ত্বেও বিরাট কেন অধিনায়কত্ব ছাড়তে চাইছেন, তা নিয়ে অনেকের মনেই প্রশ্ন উঠেছে। কোহলির এই সিদ্ধান্ত অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। বহু ক্রিকেট মহারথীই হতবাক। সেই তালিকায় এবার যুক্ত হলেন ব্রায়ান লারাও৷