অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলেই, তাঁকে ফাঁসি দেওয়া হবে! কড়া হুঁশিয়ারি দিল্লি হাইকোর্টের

অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলেই, তাঁকে ফাঁসি দেওয়া হবে! কড়া হুঁশিয়ারি দিল্লি হাইকোর্টের
অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলেই, তাঁকে ফাঁসি দেওয়া হবে! কড়া হুঁশিয়ারি দিল্লি হাইকোর্টের / প্রতীকী ছবি

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ এবার দেশজুড়ে অক্সিজেনের সংকটের মোকাবিলায় নজিরবিহীন বার্তা দিল দিল্লি হাইকোর্ট। দিল্লি হাইকোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেন সরবরাহে বাধা দিলেই, কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যে বাধা দেবে তাঁকে ফাসি দেওয়া হবে। এমনই কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে দিল্লি হাইকোর্টের তরফ থেকে।

এর পাশাপাশি এও বলা হয়েছে যে, করোনা আক্রান্ত রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহে কোনও রকম গাফিলতি বরদাস্ত করা হবে না। অক্সিজেন নিয়ে রাজ্য ও স্থানীয় স্তরে কোনরকম অনৈতিক এবং বেআইনি কাজ হলে, তাঁকে বা তাঁদের ফাঁসিতে ঝোলানোর নির্দেশ দিল আদালত।

দেশব্যাপী করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ‘সুনামি’র আকার ধারণ করেছে, এমনভাবেই ব্যাখ্যা করে, শনিবার দিল্লি হাইকোর্ট একটি মামলায় জানিয়েছে যে, হাসপাতালে অক্সিজেন সরবরাহে গাফিলতি হচ্ছে। পর্যাপ্ত পরিমাণ অক্সিজেন পৌঁছাচ্ছে না হাসপাতালগুলিতে। এই ঘটনার পিছনে যদি কেন্দ্র বা রাজ্য সরকারের কর্মী বা স্থানীয় প্রশাসনের কারও হাত থাকে, তাহলে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব হাইকোর্ট।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশের অন্যান্য রাজ্যের মতোই দিল্লির পরিস্থিতিও ক্রমশ খারাপের দিকেই যাচ্ছে। হাসপাতালগুলিতে বেডের অভাব দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি অক্সিজেন নেই, নেই দরকারি ওষুধ। স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার মুখে। যেটুকু অক্সিজেন পাওয়া যাচ্ছে অতি কষ্টে, তাও চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা, শুধুমাত্র অক্সিজেনের অভাবে। চারিদিকে কান্না কাছের মানুষকে হারানোর, হাহাকার অক্সিজেনের জন্য। রাজধানীতে সারি সারি জ্বলছে চিতা।

উল্লেখ্য, সূত্রের খবর, গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লির এক বেসরকারি হাসপাতালে ২৫ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে অক্সিজেনের অভাবে। এখনও সেখানে অনেক করোনা রোগী ভর্তি আছেন। কেন্দ্রের কাছে অক্সিজেন চেয়ে আবেদনও করা হয়েছে দিল্লি সরকারের পক্ষ থেকে। কাতর আর্জি জানিয়েছেন হাসপাতালের কর্তৃপক্ষরাও।

এদিকে আজ দিল্লি হাইকোর্ট কেন্দ্রের কাছে জানতে চেয়েছে, যে ৪৮০ মেট্রিক টন ওজনের অক্সিজেন পাঠানোর জন্য দিল্লি সরকারকে যে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, তা কবে দিল্লি সরকারের হাতে এসে পৌঁছাবে?

অন্যদিকে, এবার দেশে অক্সিজেনের সংকটের মোকাবিলায় আরও বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হল কেন্দ্র সরকারের পক্ষ থেকে।

অক্সিজেন সংকটের সমস্যার সমাধানের উপায় খুঁজে বার করতেই, শনিবার মন্ত্রী গোষ্ঠীর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, অক্সিজেন তৈরির উপকরণ ও সরবরাহের সরঞ্জামের আমদানিতে শুল্ক ও স্বাস্থ্য সেস মকুব করা হবে। আগামী তিন মাসের জন্য এই নিয়ম কার্যকর থাকবে বলেও জানানো হয়েছে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে। এর পাশাপাশি কোভিড ভ্যাকসিন উৎপাদনের সরঞ্জামের আমদানিতেও শুল্ক মকুবের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর সিদ্ধান্তের ফলে কম্বে অক্সিজেন সিলিন্ডারের দাম। পাশাপাশি সস্তা হবে অক্সিজেন সরবরাহ। বর্তমান পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.