স্ত্রীর গলা নকল করে ফোন, মহিলা পুলিশকর্মীর ফাঁদে পা দিলেন অভিযুক্ত

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ এ যেন চোর ধরার এক অভিনব পন্থা। চোরের মুখ থেকে চুরির কথা স্বীকার করিয়ে নিতে এবার চোরের বউয়ের গলা নকল করে অভিযুক্তকে হাতেনাতে ধরল বড়বাজার থানার পুলিশ। অভিযুক্ত লোকটি তখন বড়বাজার থানায় উপস্থিত। তাকে ঘিরে রয়েছে একাধিক পুলিশ আধিকারিক। এমনই সময় হঠাৎ অভিযুক্ত অবনী মন্ডলের কাছে একটি ফোন আসে। ফোনের ওপার থেকে কেউ বলে ওঠেন, হ্যাঁ গো তুমি যে টাকা চুরি করেছো তা পুলিশ জানল কীভাবে? পুলিশ আমায় ফোন করছে। এই কন্ঠস্বর আর আরও না এ তো অবনী মন্ডলের বউয়ের গলা। নিজের বউয়ের মুখে এইসমস্ত কথা শুনে শেষ পর্যন্ত সব কিছু স্বীকার করেন অবনী নামের ওই অভিযুক্ত ব্যক্তি।

বড়বাজারের একটি দোকান থেকে চার লক্ষ টাকা চুরি যায়। যার দায় এসে পড়ে অবনী মন্ডল নামে ওই ব্যক্তির ওপর। এরপরেই বড়বাজার থানায় নিয়ে আসা হয় ওই ব্যক্তিকে। সেখানে বউয়ের ফোন পেয়েই অবশেষে নিজের দোষ স্বীকার করে নেয় ওই ব্যক্তি। সে জানায়, একটি কৌটর মধ্যে ওই চার লক্ষ টাকা রেখে তা কালো প্লাস্টিকে মুড়ে নোংরা বাথরুমের কোনায় ফেলে আসে সে। তাঁর এই স্বীকারোক্তি শুনেই হাসতে থাকেন পুলিশ অফিসারেরা। তাঁরা জানান, অভিযুক্ত অবনীকে ফোন তাঁর স্ত্রী নয় বরং একজন মিহালা পুলিশকর্মী করেছিলেন।

নিজের করা এমন কুকীর্তির কথা কিছুতেই নিজের মুখে স্বীকার করতে চাননি ওই ব্যক্তি। তাই এই অবিনব পন্থা ব্যবহার করেন ওই মহিলা পুলিশকর্মী। তিনি অবনীর বউয়ের গলা নকল করেই তাকে ফোন করে টোপ দেন। আর সেই টোপ একাবারে খেয়েও ফেলে অবনী।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, বড়বাজারের এনএস রোডে প্লাস্টিকের ব্যবসা করেন পুষ্পেন্দ্রকুমার চৌধুরি। বেশ কয়েকদিন অসুস্থ থাকার কারনে তিনি দোকানে যেতে পারেনই। কিন্তু যেদিন তিনি শেষবারের মতো দোকানে গিয়েছিলেন সেদিনই দোকানের দোতলায় ৯ লক্ষ টাকার বেশি রেখে আসেন। এমনকি ভুল বসত তিনি সিন্দুকের চাবিটিও বাক্সের ওপরে ফেলে আসেন। আর তারই সুযোগ নিয়ে সিন্দুক থেকে প্রায় ৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় তাঁর দোকানেরই এক কর্মচারী অবনী মন্ডল।

সোমবার ফের মালিক যখন দোকানে এসে বিষয়টি টের পান তখনই পুলিশে খবর দেন। দুর্ভাগ্যবসত দোকানে কোন সিসিটিভি না থাকায় চোরকে ধরা কঠিক হয়ে পড়ে। কিন্তু দোকানের চার কর্মচারীকে জেরা করার পর অবনীকেই সন্দেহ করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর পরেই তাঁর বউয়ের গলা করে তাকে ফোন ক্রেন এক পুলিশকর্মী। পরে বিষয়টি জানতে পেরে হতবাক হয়ে যায় অবনী। এর পরেই অবনীর সাথে গিয়ে সেই বাথরুম থেকে কৌট সহ ৪ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে বড়বাজার থানার পুলিশ।

আরও পড়ুনঃ  মেরুন শাড়িতে অপরূপা রুক্মিনী ভাইরাল হলেন নেটদুনিয়ায়

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.