অক্টোবর মাসে এই ৪ জেলার মহিলারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! কিন্তু কেন? জেনে নিন

অক্টোবর মাসে এই ৪ জেলার মহিলারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! কিন্তু কেন? জেনে নিন
অক্টোবর মাসে এই ৪ জেলার মহিলারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! কিন্তু কেন? জেনে নিন

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছেন, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের মহিলাদের আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের সাধারণ ক্যাটাগরির মহিলাদের প্রতি মাসে ৫০০ টাকা এবং তপশিলি ও আদিবাসী মহিলাদের প্রতি মাসে ১০০০ টাকা করে দেওয়া হবে। এই টাকা প্রতি মাসেই পাওয়া যাবে বলে জানা যাচ্ছে সরকারি সূত্রে।

মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী, ইতিমধ্যেই টাকা পেতেন শুরু করেছেন রাজ্যের বিভিন্ন জেলার মহিলারা। কিন্তু সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, চার জেলার মহিলারা অক্টোবর মাসে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পাবেন না। সেই জেলাগুলি হল উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, নদিয়া ও কোচবিহার। কিন্তু জেলাগুলির মহিলারা কেন টাকা পাবেন না? তা এবার জানিয়ে দিলেন স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অক্টোবর মাসে এই ৪ জেলার মহিলারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! কিন্তু কেন? জেনে নিন
অক্টোবর মাসে এই ৪ জেলার মহিলারা পাবেন না লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা! কিন্তু কেন? জেনে নিন

শনিবার নবান্ন থেকে এই চার জেলার মহিলাদের টাকা না পাওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। আসলে এই চার জেলার কোচবিহার, শান্তিপুর, গোসাবা, খড়দহে আগামী ৩০ অক্টোবর উপনির্বাচন রয়েছে। উপ নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে যাওয়ার কারণে এখন থেকেই এই সকল এলাকায় লাগু হয়েছে নির্বাচনী আচরণবিধি। এদিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা জানান, “ওই চার জেলার চারটি বিধানসভা কেন্দ্রে আগামী ৩০ অক্টোবর বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে। নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। তাই উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, নদিয়া ও কোচবিহারের এই চার বিধানসভা কেন্দ্রের মহিলারা অক্টোবরে লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পাবেন না। কারণ, নির্বাচন প্রক্রিয়া চলায় টাকা দেওয়ায় বাধা রয়েছে।”

তবে তা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। মুখ্যমন্ত্রী আশ্বস্ত করেছেন, অক্টোবর মাসে না পেলেও নভেম্বর মাসে ওই ৪ জেলার উপভোক্তারা এক সঙ্গে দুই মাসের টাকা পেয়ে যাবেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, নভেম্বর মাসে চার কেন্দ্রে ভোটের ফলাফল বেরনোর পর তাঁদের প্রাপ্য টাকা পৌঁছে যাবে। একসঙ্গে দু’মাসের টাকা পাবেন তাঁরা। ফলে চিন্তার কোনও কারণ নেই।