ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা নাকি ৪৯ লক্ষ? মৃতের সংখ্যা নিয়ে এমনই বলছে এই রিপোর্ট

ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা নাকি ৪৯ লক্ষ? মৃতের সংখ্যা নিয়ে এমনই বলছে এই রিপোর্ট
ভারতে করোনায় মৃতের সংখ্যা নাকি ৪৯ লক্ষ? মৃতের সংখ্যা নিয়ে এমনই বলছে এই রিপোর্ট

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা নিয়ে শুরু থেকেই অর্থাৎ প্রথম ঢেউয়ের সময় থেকেই ছিল। কিন্তু সেই সংখ্যাটা আসলে যে কত, সে সংক্রান্ত কোনও হিসেব ছিল না। এমনটাও দেখা গেছে যে, প্রায়ই বিভিন্ন রাজ্যে করোনার মৃতদের তথ্য নতুন করে যাচাই করার সময় একধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গেছে মৃতের সংখ্যা।

সরকারি রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশে করোনার কারণে মৃতের সংখ্যা চলতি বছরের জুনের শেষ পর্যন্ত ছিল প্রায় ৪ লক্ষ। কিন্তু সম্প্রতি এবার একটি নতুন গবেষণায় দেখা দিয়েছে যে, দেশে করোনায় মৃতের প্রকাশিত সরকারি তথ্যের তুলনায় অতিরিক্ত অনেক বেশি সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ওয়াশিংটনের সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্টের রিপোর্ট অনুযায়ী, বাস্তব চিত্রটা নাকি আরও ভয়ঙ্কর। সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্টের রিপোর্ট অনুযায়ী, দেশভাগের পর, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভারতের সবচেয়ে বড় ট্র্যাজেডি। ওই সময় অতিরিক্ত প্রায় ৪৯ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

এই রিপোর্ট যৌথভাবে প্রস্তুত করেছেন, ভারতের প্রাক্তন প্রধান অর্থনৈতিক পরামর্শদাতা অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিষেক আনন্দ এবং ওয়াশিংটনের সংস্থা সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট-এর জাস্টিন স্যান্ডেফুর।

জানা গিয়েছে যে, সেরো সার্ভে, বাড়ি বাড়ি ঘুরে সংগ্রহ করা তথ্য এবং সরকারি তথ্যের ভিত্তিতে তাঁরা ওই রিপোর্টটি তৈরি করেছেন। এখানেই শেষ নয়, সূত্রের খবর, সেই রিপোর্টে নাকি এও দাবি করা হয়েছে যে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের আঘাতে ভারতে প্রায় ৬ মিলিয়ন মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সিভিল রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম-এর তথ্য অনুযায়ী, করোনার প্রথম ঢেউয়ে আনুমানিক ২ মিলিয়ন মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়াও গোটা দেশের প্রায় ৮ লক্ষ বাড়ি থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছে Consumer Pyramid Household Survey (CPHS)। সেই তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি রিপোর্ট বলছে, দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে প্রায় ৪৯ লক্ষ অতিরিক্ত মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

আবার অন্যদিকে, সিভিল রেজিস্ট্রেশন অফ ডেথ-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতে প্রায় ৩৪ লক্ষ অতিরিক্ত মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও SERO-PREVALENCE SURVEY-র তথ্য বলছে, দ্বিতীয় ঢেউয়ে ১.৫ থেকে ২.৪ মিলিয়ন অতিরিক্ত মানুষের মৃত্যু হয়েছে।