ছটপুজো সেরে ফেরার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনা! অসমে যাত্রী বোঝাই অটোতে লরির ধাক্কায় মৃত্যু ৯ জনের

ছটপুজো সেরে ফেরার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনা! অসমে যাত্রী বোঝাই অটোতে লরির ধাক্কায় মৃত্যু ৯ জনের
ছটপুজো সেরে ফেরার পথে ভয়াবহ দুর্ঘটনা! অসমে যাত্রী বোঝাই অটোতে লরির ধাক্কায় মৃত্যু ৯ জনের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ছটপুজোর আনন্দ মুহূর্তের মধ্যে বদলে গেল বিষাদে। ছটপুজো সেরে ফেরার পথে অসমের করিমগঞ্জের পাথরখাণ্ডিতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে। অটোয় লরির ধাক্কায় প্রাণ গেল ৯ জনের। নিহতদের মধ্যে শিশুও রয়েছে। এদিকে দুর্ঘটনার পর থেকেই পলাতক লরি চালক।

জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার ছটপুজো সেরে ৮ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে ফিরছিলেন একই পরিবারের বেশ কয়েকজন। তাঁরা প্রত্যেকে অটোতে ছিলেন। পাথরখাণ্ডির কাছে উলটোদিক থেকে আসা একটি লরি ধাক্কা মারে অটোয়। তাতেই ঘটনাস্থলে ন’জনের মৃ্ত্যু হয়। তাদের মধ্যে তিনজন শিশুও রয়েছে।

এই দুর্ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌছায় পুলিশ। এরপর এক এক করে মৃতদেহগুলি উদ্ধার করা হয়। ইতিমধ্যেই দেহগুলি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনাগ্রস্ত অটোটিকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তবে, ঘাতক লরিটিকে আটক করা যায়নি।

অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মা টুইট করে বলেন, ‘আজ সকালে পাথরখণ্ডীর বৈতাখালে এক দুর্ঘটনায় ৯ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। আহত একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অটোয়ধাক্কা দেওয়ার পরই লরিচালক পালিয়ে যায়। লরিচালকের খোঁজ চলছে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অসমের আগে গত বুধবারই রাজস্থানেও মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় অন্তত ১২ জনের। বারমেঢ়-যোধপুর হাইওয়েতে একটি বেসরকারি বাসকে প্রথমে সজোরে ধাক্কা মারে একটি ট্যাঙ্কার। তার জেরে সঙ্গে সঙ্গেই আগুন ধরে যায় বাসটিতে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বালতোরা থেকে সকাল ৯ টা বেজে ৫৫ মিনিটে যোধপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল বাসটি। বাসটিতে ২৫ জন যাত্রী ছিলেন। এক যাত্রী ওই দুর্ঘটনা প্রসঙ্গে জানিয়েছিলেন, আচমকাই হাইওয়ের উল্টো লেন দিয়ে একটি ট্যাঙ্কার চলে আসে বাসের সামনে। এরপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা মারে বাসটিকে। সঙ্গে সঙ্গে আগুন ধরে যায় বাসে। এর জেরে ঘটনাস্থলেই কমপক্ষে ১২ জনের অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়। তবে, ১০ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়।