‘বাড়িতে বসে একঘেয়ে জীবন কাটানোর চেয়ে ভালো জেলে থাকা’ পুলিশের কাছে স্বেচ্ছা গ্রেপ্তারের দাবী করলেন ব্যক্তি

'বাড়িতে বসে একঘেয়ে জীবন কাটানোর চেয়ে ভালো জেলে থাকা' পুলিশের কাছে স্বেচ্ছা গ্রেপ্তারের দাবী করলেন ব্যক্তি /
'বাড়িতে বসে একঘেয়ে জীবন কাটানোর চেয়ে ভালো জেলে থাকা' পুলিশের কাছে স্বেচ্ছা গ্রেপ্তারের দাবী করলেন ব্যক্তি / ছবি সৌজন্যেঃ ফাইল ছবি

বিগত এক বছর ধরে সারা বিশ্ব করোনার কবলে। গত বছরের অর্ধেকের বেশি সময় কেটেছিল ঘর বন্দী দশায়। বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা আয়ত্তের মধ্যে এলেও বহু অফিসেই এখনও ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’-এর নিয়মই চালু রয়েছে৷ ফলে সারাদিন গৃহবন্দী হয়েই কাটাতে হচ্ছে অধিকাংশ মানুষকেই। সেই কারণে তাদের গ্রাস করছে একাকীত্ব। একঘেয়ে লাগতে শুরু করছে চারপাশ।

কিন্তু এই ‘বোরিং’ জীবন আর কাঁহাতক সহ্য হয়? গত অক্টোবরে হওয়া এক সমীক্ষার ফলাফলে উঠে এসেছে, গৃহবন্দি থাকার কারণে প্রায় পাঁচ শতাংশ মানুষের স্বভাব ও আচরণে বিপুল পরিবর্তন ঘটেছে। খুব ছোটখাটো কথাতেই মেজাজ হারাচ্ছেন তাঁরা। বাড়ছে বিরক্তির পরিমাণও।

তাই এসবের হাত থেকে মুক্তি পেতে একঘেয়েমি কাটানোর জন্য বিভিন্ন সব পন্থাও অবলম্বন করছেন সাধারণ মানুষ। সেগুলির এক একটি যেমন চমকপ্রদ, তেমনই কিছু কিছু বড়ই অদ্ভুত! ঠিক সেরকমই এক অদ্ভুত পন্থার দারস্ত হলেন সাসেক্সের এক ব্যক্তি। গত বুধবার তিনি মিড সাসেক্সের বার্জেস হিল থানায় ফোন করে বলেন, তাঁকে গ্রেপ্তার করতে। কারণ? বাড়িতে তাঁর মন টিকছে না।

থানায় ফোন করে স্বেচ্ছা গ্রেপ্তারের দাবী জানিয়ে তিনি বলেন বাড়িতে একঘেয়েমি জীবন ছেড়ে একটু শান্তির প্রয়োজন। সংসারের নিত্য অশান্তি থেকে দূরে থাকতে চান তিনি। তাই জেলে কাটাতে চান কিছুদিন। এখানেই শেষ নয়। ফোন করার পর বুধবার বিকেল ৫টা নাগাদ থানায় এসে হাজিরও হন ওই ব্যক্তি। গ্রেপ্তারের আর্জিও জানাতে থাকেন। শেষমেশ তাঁকে বুঝিয়ে বাড়ি পাঠানো হয়। তবে সেই ব্যক্তির পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

আরো পড়ুনঃ   চুরি গেল সাধের দুই পোষ্য, খোঁজ দিলে ৩.৫ কোটির পুরস্কার ঘোষণা করলেন জনপ্রিয় হলিউডি গায়িকা