নন্দীগ্রাম দিবসে নির্বাচনী প্রচারে বঙ্গে অমিত শাহ, খড়গপুরে অভিনেতা হিরণের সমর্থনে করবেন রোড শো

নন্দীগ্রাম দিবসে নির্বাচনী প্রচারে বঙ্গে অমিত শাহ, খড়গপুরে অভিনেতা হিরণের সমর্থনে করবেন রোড শো
নন্দীগ্রাম দিবসে নির্বাচনী প্রচারে বঙ্গে অমিত শাহ, খড়গপুরে অভিনেতা হিরণের সমর্থনে করবেন রোড শো / ছবি সৌজন্যে- Screengrab from Facebook Video Posted By @amitshahofficial

বংনিউজ২৪x৭ডিজিটাল ডেস্কঃ লক্ষ্য নীলবাড়ি। সামনেই বঙ্গে ৮ দফায় নির্বাচন শুরু হতে চলেছে। বাকি মাত্র আর দু’সপ্তাহ। বাংলার সিংহাসন দখলের লড়াইয়ে ইতিমধ্যেই কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে প্রতিটি রাজনৈতিক দল।

এই আবহে ফের দু’দিনের সফরে বঙ্গে আসছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। অসমের নির্বাচনী প্রচার সেরে রবিবার ফের রাজ্যে আসছেন অমিত শাহ। খড়গপুরে রোড শো-সহ এবারের সফরে রয়েছে একাধিক কর্মসূচি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র।

এদিকে ১৪ মার্চ নন্দীগ্রাম দিবস। তৃণমূলের পথে নামার দিনেই পাল্টা প্রচারে আরও একবার নির্বাচনী প্রচারে বাংলায় আসছেন অমিত শাহ। ১৪ মার্চ, রবিবার অর্থাৎ আজ বিকেলে খড়গপুর সদরের প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের সমর্থনে একটি রোড শো করার কথা রয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

এই রোড শো-টি হবে খড়গপুরের প্রেমহরি ভবন থেকে মালঞ্চ পেট্রল পাম্প পর্যন্ত। সেখান থেকে অমিত শাহ যাবেন জেলা ও মণ্ডল কমিটির বৈঠকে। রাজনীতির ময়দানে নবাগত হিরণের জন্যই কেন প্রচারে অমিত শাহ, এই প্রশ্ন ইতিমধ্যেই উঠতে শুরু করেছে। উল্লেখ্য, বিজেপির প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার আগে থেকেই জল্পনা ছিল এই আসনের জন্য প্রার্থী হবেন দিলীপ ঘোষ। কিন্তু পরে এই আসনের জন্য প্রার্থী হিসেবে বাছাই করা হয় নবাগত হিরণকে। হিরণ নবাগত হওয়ার কারণেই মনে করা হচ্ছে তাঁর হয়ে প্রচারে থাকবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ফেব্রুয়ারি মাসেই অমিত শাহের নামখানার সভায় গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন অভিনেতা হিরণ। অমিত শাহের হাত থেকে পদ্ম পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে কংগ্রেসের পাঁচবারের বিধায়ক জ্ঞান সিং সোহনপালকে হারিয়ে খড়গপুর সদরে বিধায়ক হন দিলীপ ঘোষ। পরে ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে লড়াই করার জন্য কেন্দ্রটি ছেড়ে দেন তিনি। পরে উপনির্বাচনে এই কেন্দ্রের ক্ষমতা ফের তৃণমূলের দখলে আসে। উপনির্বাচনে হার হয় বিজেপির। সব মিলিয়ে এবারের নির্বাচনে নন্দীগ্রাম আসনের যেমন হাইভোল্টেজ লড়াই, ঠিক তেমনই খড়গপুর সদর এই আসনটিও ততোধিক গুরুত্বপূর্ণ। এই আসনের লড়াই কার্যত বিজেপির জন্য সম্মানের জন্য লড়াই, সম্মান ফিরে পাওয়ার লড়াই। তাই এই আসনটিকে কেন্দ্র করে বিজেপির যথেষ্ট মাথাব্যথা রয়েছে।

সেই কারণেই এই আসনের কঠিন লড়াইয়ে নবাগত হিরণকে এগিয়ে দিতেই বঙ্গে আগমন অমিত শাহ’র। স্বাভাবিকভাবেই অমিত শাহ’র আগমনে লড়াইয়ে নতুন করে উৎসাহিত হচ্ছেন দলীয় নেতা-কর্মীরা। এখন দেখার যে, হিরণ দলের বিশ্বাস এবং ভরসায় ভোটের লড়াইয়ে জিতে এই আসনে বিজেপিকে ফিরিয়ে আনতে পারেন কিনা!

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.