মা’কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের

মা'কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের
মা'কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের

বর্তমানে তিনি টলিউড ও বলিউড জগতের ‘মেলোডি কিং’। সঙ্গীত জগতে তাঁর জনপ্রিয়তা আজ আকাশছোঁয়া। রোমান্টিক গান হোক বা ট্রাজেডি, অথবা বিরহ মেদুর কোনও সুর, তাঁর গানে মোহিত হননি এমন মানুষ বোধ হয় ভূভারতে খুঁজে পাওয়া যাবে না! তিনি সঙ্গীতাকাশের অন্যতম উজ্জ্বল এক তারকা, অরিজিৎ সিং। তবে গানের পাশাপাশি সমাজসেবাতেও পিছিয়ে নেই অরিজিৎ। সম্প্রতি নিজের মাকে হারিয়েছেন জনপ্রিয় এই গায়ক। তারপরই করোনাযুদ্ধে সাধারণ মানুষের সেবায় বিলিয়ে দিয়েছেন নিজেকে।

মা'কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের
মা’কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের

মানুষের বিপদে আপদে প্রায়ই পাশে এসে দাঁড়ান গায়ক। ইতিমধ্যেই মূর্শিদাবাদের জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরে ৫টি হাই ফ্লো অক্সিজেন থেরাপি মেশিন দান করেছেন তিনি। তারপরই ফেসবুকে অনলাইন কনসার্ট করে সেখান থেকে প্রাপ্ত অর্থ গ্রামের চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়ন খাতে দান করবেন বলে জানিয়েছিলেন গায়ক৷ এবার সে কথাও রাখলেন তিনি। টানা দু ঘণ্টা ধরে গান গেয়ে করোনাকালে অসহায় মানুষের পাশে অরিজিৎ এসে দাঁড়ালেন এভাবেই।

মা'কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের
মা’কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের

গত রবিবার ‘গিভ ইন্ডিয়া’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার আয়োজিত একটি অনলাইন কনসার্টে গান গাইতে দেখা গেল জনপ্রিয় এই গায়ককে৷ রাত ৮ টায় সেই কনসার্টে হাজির হন অরিজিৎ। রাত ১০ টায় শেষ হয় সে অনুষ্ঠান। এদিন টানা ২ ঘন্টা ধরে গান গেয়ে যান গায়ক। তাঁর গলায় নতুন গান ‘জানে বাচায়েঙ্গে’ শুনে সকলে যেন মোহিত হয়ে পড়েন। আর গায়কের ২ ঘণ্টার অনুষ্ঠানটি দেখে মুগ্ধ হননি এমন মানুষও বোধ হয় হাতে গোণা।

মা'কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের
মা’কে হারিয়েও মানবিক অরিজিৎ সিং! করোনাকালে গ্রামের পাশে দাঁড়াতে টানা ২ ঘন্টা গান গায়কের

গ্রামের চিকিৎসা খাতেই এই অর্থ দান করতে চান অরিজিৎ। তিনি ঠিক করেছেন, অনলাইন কনসার্ট থেকে সংগৃহীত অর্থ দিয়ে গ্রামীণ হাসপাতালগুলির জন্যই এম.আর.আই, সিটি স্ক্যানের মত ব্যয়বহুল যন্ত্রপাতি কিনবেন তিনি। এই অতিমারি কালে যাতে মানুষকে সেগুলির অভাবে ভুগতে না হয়, সেই কারণেই গায়কের এই পরিকল্পনা। একইসঙ্গে গ্রামীণ হাসপাতাল গুলির পরিকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি অক্সিজেন, পর্যাপ্ত শয্যা ব্যবস্থা, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র ইত্যাদি খরচ এবং করোনায় নিকট আত্মীয় হারানো মানুষদের আর্থিক সাহায্যের জন্য সকল অনুরাগীদের কাছে সাহায্য প্রার্থনাও করেছেন অরিজিৎ। গায়কের এই উদ্যোগ সত্যিই কুর্নিশযোগ্যই বটে!