মন্ত্রিত্ব হারিয়ে এবার মুকুল রায় এবং তৃণমূলকে ট্যুইটারে ফলো বাবুলের! জল্পনা তুঙ্গে

মন্ত্রিত্ব হারিয়ে এবার মুকুল রায় এবং তৃণমূলকে ট্যুইটারে ফলো বাবুলের! জল্পনা তুঙ্গে
মন্ত্রিত্ব হারিয়ে এবার মুকুল রায় এবং তৃণমূলকে ট্যুইটারে ফলো বাবুলের! জল্পনা তুঙ্গে

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ মাত্র কয়েকদিন হল তিনি মন্ত্রিত্ব হারিয়েছেন। মন্ত্রিত্ব হারিয়ে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন। রাজনীতিতে তিনি খানিক নিস্পৃহতাই দেখাচ্ছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। এরপর হঠাৎই ট্যুইটারে তৎপরতার সঙ্গে মুকুল রায় এবং তৃণমূল কংগ্রেসকে ফলো করতে শুরু করলেন বাবুল সুপ্রিয়। ইতিমধ্যেই এই গোটা বিষয়টি প্রকাশ্যে এসেছে। তা ভাইরালও হয়েছে ইতিমধ্যেই। অবশ্য, উভয়পক্ষের কেউই এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে, এই মৌনতাই জল্পনা বাড়িয়ে তুলছে।

উল্লেখ্য, মাত্র কয়েকদিন আগেই মোদী মন্ত্রিসভায় রদবদল ঘটেছে। মোদী বলেছেন, নতুন মন্ত্রিসভায় তারুণ্যের উপর জোর দেওয়া হয়েছে। কিন্তু রাজনৈতিক মহলের মতে, ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই, মোদী তাঁর নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করেছেন। তাই স্বাভাবিকভাবেই বাদ পড়েছেন কেউ কেউ। এর মধ্যে রয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়ও।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, তারুণ্য নয়, পারফরম্যান্সকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তার কারণ, বাবুল তো সে অর্থে তরুণই, তাঁকে তো তারুণ্যের যুক্তিতে বাদ দেওয়া যায় না। অনেকেই বলছেন, খারাপ পারফরম্যান্সের জন্যই বাবুলের নাম মন্ত্রিত্ব থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এরপর গত কয়েকদিনে বাবুল সুপ্রিয় প্রায় চুপই ছিলেন। রাজনীতি থেকে নিজেকে খানিক দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন।

সম্প্রতি ফেসবুকে একটি পোস্টে তিনি মুখ খুলেছেন, মন্ত্রিত্ব যাওয়া নিয়ে। তিনি জানিয়েছেন, অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে যারা আমাকে সমবেদনা জানাচ্ছেন, তাঁদের মন থেকে ধন্যবাদ জানাই। মন্ত্রী থাকার সময়ে ৭ বছরেও এত মেসেজ পাইনি। কেউ কেউ আবার বলেছেন, তিনি হয়তো রাজনৈতিক এই বৃত্ত থেকে দূরে সেরে সঙ্গীতে ফিরে যেতে পারেন। নিজের গান পোস্ট করতে দেখা যায় বাবুলকেও। তাঁর তৎপরতা বুঝিয়ে দিচ্ছিল যে, এতো সহজে রাজনীতির ময়দান ছাড়ছেন না বাবুল।

এখন প্রশ্ন হল, তিনি কি বিজেপিতে থেকে রাজনীতিটা করবেন, নাকি বদলে ফেলতে পারেন শিবির, আপাতত বঙ্গ রাজনীতির ছোট্ট পরিসরে আলোচনা এইসব নিয়েই।