নির্মম চিকিৎসকঃ ট্রাক চালকদের খুন করে দেহের অবশিষ্টাংশ কুমীরকে খাইয়ে দিত!

নির্মম চিকিৎসকঃ ট্রাক চালকদের খুন করে দেহের অবশিষ্টাংশ কুমীরকে খাইয়ে দিত!
নির্মম চিকিৎসকঃ ট্রাক চালকদের খুন করে দেহের অবশিষ্টাংশ কুমীরকে খাইয়ে দিত!

বংনিউজ২৪X৭ ডেস্কঃ পেশায় আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক। কিন্তু খুন করতে সিদ্ধহস্ত। বছর ৬২ এর দেবেন্দ্র কুমার শর্মা দিল্লি পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তার বিরুদ্ধে খুনের মামলা চলছিল। ২০০৪ সালে এই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে খুনে মামলা করা করা হয়। ভালো ব্যবহারের জন্য ১৬ বছর পরে তাকে জেল থেকে প্যারোল দিলে সে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ফিরে আসে না।

দিল্লি পুলিশের তরফে ডেপুটি কমিশনার রাকেশ পায়েরিয়া জানিয়েছেন, ২০০২ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত এই চিকিৎসক দিল্লি, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, রাজস্থানের ট্রাক এবং ট্যাক্সি চালকদের অপহরন করে খুন করেছে। কিডনি প্রতিস্থাপনের বেআইনি কারবারও চালাত এই চিকিৎসক। সরকারের নজরে এই চিকিৎসক ১৯৯৪ থেকে ২০০৪ সালের মধ্যে চলা বেআইনি কিডনি প্রতিস্থাপনের চক্রের সাহায্যে আসে।

সবমিলিয়ে ওই চিকিৎসক ১২৫ টি বেআইনি অঙ্গ প্রতিস্থাপনের অভিযোগ এসেছে এই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। চালকদের মেরে ফেলার জন্য ট্যাক্সি এবং ট্রাককে ভাড়া নেওয়ার জন্য যে দলটি কাজ করেছেন, তাদেরও মুল চক্রী ছিলেন এই চিকিৎসক। এমনকী কাজ হয়ে যাওয়ার পর ওই গাড়িগুলোকে বিক্রি করে দেওয়া হত।

মেরে ফেলার পর, অঙ্গ প্রতিস্থাপন শেষ হয়ে গেলে ওই মৃতদেহগুলিকে উত্তরপ্রদেশের কাশগঞ্জের হাজারা খালে ফেলে দেওয়া হত। ওই খালে কুমীর থাকায় সহজেই মৃতদেহের প্রমান লোপাট হয়ে যেত। কুমার নিজে স্বীকার করেছেন, ১০০ জনের বেশি ট্যাক্সি এবং ট্রাক চালককে মেরে ফেলেছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.