বড় খবর! নারদা কাণ্ডে চার নেতা-মন্ত্রীর অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করল শীর্ষ আদালত

বড় খবর! নারদা কাণ্ডে চার নেতা-মন্ত্রীর অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করল শীর্ষ আদালত
বড় খবর! নারদা কাণ্ডে চার নেতা-মন্ত্রীর অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করল শীর্ষ আদালত

নারদা-কাণ্ডে ফের স্বস্তি তৃণমূল শিবিরে। শর্তসাপেক্ষে অভিযুক্ত চার নেতা-মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র ও সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও শোভন চট্টোপাধ্যায়ের অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করল শীর্ষ আদালত। ২ লাখ টাকার ব্যক্তিগত বণ্ডে জামিন পেলেন তাঁরা। এর ফলে চার হেভিওয়েট নেতা-মন্ত্রীকে আর গৃহবন্দী থাকতে হবে না।

এদিন শীর্ষ আদালতের পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চে শুনানি শুরু হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি। তবে বেশ কিছু শর্ত রাখা হয়েছে। প্রথমত নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, নারদা-কাণ্ড নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিতে পারবেন না চার নেতা-মন্ত্রী। শুধুমাত্র নারদ মামলা নিয়ে সংবাদমাধ্যমে কোনও মন্তব্য বা সাক্ষাৎকার দেওয়া যাবে না। দ্বিতীয়ত, কোনও রকম তথ্য প্রমাণ বিকৃতও করা চলবে না।

হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি শুনানির শুরুতে এদিন জানিয়েছিলেন, অভিযুক্ত চার নেতা-মন্ত্রীর শর্ত সাপেক্ষে জামিনের ব্যাপারে ভাবছে আদালত। তিনি বলেন, “এই মামলা অনেকদিন ধরে চলতে পারে। ততদিন এই অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করা যেতে পারে। পরে চূড়ান্ত নির্দেশ দেওয়া হলে প্রয়োজনে জামিন খারিজও করা যাবে।” অন্যদিকে বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেন, “এঁরা জন পরিষেবার কাজে যুক্ত। ২০১৭ সালে মামলার শুরুতেই কেন এঁদের তখন গ্রেপ্তার করা হয়নি? এখন কেন?”

এ বিষয়ে সিবিআইয়ের পক্ষে সওয়ালতকারী তুষার মেহতার মতামত চায় আদালত। তিনি চার হেভিওয়েট নেতা-মন্ত্রীর প্রভাবশালী তত্ত্বের ওপর ভিত্তি করে আদালতকে জানান, “জামিন দেওয়া হলেও যাতে চার নেতা-মন্ত্রী সাংবাদিকদের মুখোমুখি না হতে পারেন, সেই নির্দেশ দেওয়া হয়।” তাঁকে আশস্ত করে সেই মতামত মেনে নেয় আদালত। তারপরই অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করা হয়। পাশাপাশি আদালতের তরফে এও জানানো হয়েছে, “মামলা ধামাচাপা পড়ে যাবে না।”