গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশে একাধিক শর্ত আরোপ কমিশনের, বুধবারই জারি হল নির্দেশিকা

গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশে একাধিক শর্ত আরোপ কমিশনের, বুধবারই জারি হল নির্দেশিকা
গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশে একাধিক শর্ত আরোপ কমিশনের, বুধবারই জারি হল নির্দেশিকা

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আর মাত্র ১ দফার ভোট বাকি বাংলায়। তার পরেই রয়েছে ২ মে ভোট গণনা। মসনদে কারা বসবে, কোন দলের ভাগ্যে শিকে ছিঁড়বে, তা নির্ধারণের দিন ২ মে। বাংলা ছাড়া অসম, কেরল, তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরিতেও একই দিনে ভোট গণনা রয়েছে।

এদিকে দেশের বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে ফল প্রকাশের পর, কোনও বিজয় মিছিল করা যাবে না বলে আগেই ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আর এবার ভোট গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশ নিয়েও একাধিক শর্ত আরোপ করল নির্বাচন কমিশন।

করোনা পরিস্থিতিতে সংক্রমণ এড়াতে সতর্ক নির্বাচন কমিশন। তাই এবার গণনাকেন্দ্রে প্রবেশের ক্ষেত্রেও শর্ত আরোপ করা হল কমিশনের পক্ষ থেকে। বুধবার নির্দেশিকা জারি করে কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশ করতে হলে, তাঁদের করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট বা কোভিড টিকার দুটি ডোজ নেওয়ার শংসাপত্র অবশ্যই দেখাতে হবে।

এর পাশাপাশি করোনা আক্রান্ত কিনা তা জানার জন্য, গণনার ৪৮ ঘণ্টা আগে, আরটিপিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে। গণনা কেন্দ্রের বাইরে ভিড় করতে বা জমায়েত করতে পারবেন না কোনও রাজনৈতিক দলের সমর্থকরা। এখানেই শেষ নয়, প্রার্থীদের কোন এজেন্ট গণনা কেন্দ্রে থাকবেন, গণনার তিনদিন আগে তাঁদের নামের তালিকা জমা দিতে হবে কমিশনের কাছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই দেশের চার রাজ্য, যথাক্রমে বাংলা, অসম, কেরল, তামিলনাড়ু এবং এক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুদুচেরিতে ভোট হয়েছে। আর এই ভোটের আবহে দ্রুত হারে বৃদ্ধি পেয়েছে করোনা সংক্রমণ। দেশব্যাপী আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। এই পরিস্থিতির জন্য নির্বাচন কমিশনকে দায়ী করেছে মাদ্রাজ হাইকোর্ট।

অন্যদিকে দিল্লি এবং কলকাতা হাইকোর্টেও সমালোচিত হয়েছে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা। এর পরেই কড়া অবস্থান নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বিজয়মিছিল বাতিলের পর, তাই এবার গণনাকেন্দ্রে প্রার্থীদের প্রবেশের উপর শর্ত আরোপ করল নির্বাচন কমিশন। এই নির্দেশিকা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই দাবি ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.