ফের তলব লালাকে, এবার জেরা হতে পারে অন্য এক সাগরেদের মুখোমুখি বসিয়ে

ফের তলব লালাকে, এবার জেরা হতে পারে অন্য এক সাগরেদের মুখোমুখি বসিয়ে
ফের তলব লালাকে, এবার জেরা হতে পারে অন্য এক সাগরেদের মুখোমুখি বসিয়ে

আজ বৃহস্পতিবার ফের তলব করা হল কয়লা কান্ডের মূল অভিযুক্ত অনুপ মাজি ওরফে লালাকে। সিবিআই সূত্রে খবর, আজ তাঁকে তাঁর সঙ্গী গুরুপদকের মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হতে পারে।

সিবিআই সূত্রে খবর, মূলত কয়লা পাচারের ব্যবসায় কিভাবে এই দুই সাগরেদ টাকা খাটাতেন তাই নিয়ে এদিন জিজ্ঞেসাবাদ করা হতে পারে। যদিও গতকাল গুরুপদ মাজিকে তলব করেছিল কেন্দ্রীয় সংস্থা। এদিন ফের একবার তলব করা হল তাঁকেও।

তবে এদিন জিজ্ঞেসাবাদ করা হলেও সর্বোচ্চ আদালত নির্দেশ মত গ্রেফতার করা যাবেনা লালাকে। কারণ আগামী ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত তাঁকে রক্ষা কবচ দিয়ে রেখেছে সুপ্রিম কোর্ট। অর্থাৎ ভোটের সময়ে ফের একবার স্বস্তিতে লালা।

সিবিআই সূত্রে খবর, লালা কয়লা পাচার কাণ্ডের জেরায় যথাযথ তদন্তকারী দলকে সাহায্য করছেন না লালা। এই অভিযোগ তুলেই তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নিতে চেয়েছিল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু সেই সময়ই ৬ এপ্রিল পর্যন্ত লালা কে রক্ষা কবচ দিয়ে রেখেছিল সিবিআই। সেই মেয়াদ এবার আরও বাড়ানো হল।

ভোটের আগের থেকেই তৎপর হয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কয়লা পাচার কাণ্ডে একের পর এক শীর্ষ স্থানীয় মাথা কে আটক করছে সিবিআই। এরপরেই অনুপ মাজি কে তলব করতেই সিবিআইয়ের এক্তিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তোলেন লালা। দ্বারস্ত হন আদালতের। তবে আদালতের কাছে সেই আবেদন ধোপে টেকেনি। সিবিআই নিজেদের মত করে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে বলে জানিয়েছিল আদালত। কিন্তু তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না বলেও জানানো হয়েছিল।

সিবিআই সূত্রে খবর, বিদেশে পালাতে পারেন অনুপ মাজি। তাই গত ডিসেম্বর মাসেই কয়লা পাচার কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত লালার বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি করে সিবিআই। সে যাতে বিদেশে পালাতে না পারেন তাই এই পদক্ষেপ করে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটি। কিন্তু তাঁর গ্রেফতারিতে আপাতত স্থগিতাদেশ দিয়ে রাখল সর্বোচ্চ আদালত।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.