কমিশনের বিধি উঠতেই আজই শীতলকুচি কাণ্ডে মৃতদের পরিবারের সঙ্গে মাথাভাঙ্গায় দেখা করবেন মমতা

কমিশনের বিধি উঠতেই আজই শীতলকুচি কাণ্ডে মৃতদের পরিবারের সঙ্গে মাথাভাঙ্গায় দেখা করবেন মমতা
কমিশনের বিধি উঠতেই আজই শীতলকুচি কাণ্ডে মৃতদের পরিবারের সঙ্গে মাথাভাঙ্গায় দেখা করবেন মমতা

নির্বাচনী প্রচারে নিষেধাজ্ঞা উঠতেই মঙ্গলবার রাতেই জনসভা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানান আজ অর্থাৎ বুধবারই মাথাভাঙ্গা যাবেন তিনি। দেখা করবেন নিহতদের পরিবারের সঙ্গে। ঘটনার পরের দিনই শীতলকুচি যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের বিধি অনুযায়ী সেখানে যেতে পারেননি তিনি।

তৃণমূল সূত্রে খবর, এদিন সকাল ১০টা নাগাদ হেলিকপ্টারে মাথাভাঙায় যাবেন তৃণমূলনেত্রী। সেইমতো তৈরি হয়েছে হেলিপ্যাড।এই মাঠেই মৃতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন মমতা। এদিকে, মৃত বিজেপি কর্মী আনন্দ বর্মনের পরিবারের সঙ্গেও দেখা করতে চেয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু নিহতের পরিবারের সঙ্গে তৃণমূলের তরফে যোগাযোগ করা হলে, তারা জানিয়ে দেয়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোনও সাহায্য তাঁরা চান না।

সল্টলেকের সভা থেকে মমতা বলেন, “বিজেপি হেরে যাবে বলে সমস্ত এজেন্সি কে নামিয়েছে আমার প্রচার নষ্ট করার জন্য।আমি কাল শিতলকুচি যাব।আমি ভেবে পাই না রাবনের পার্টি ,গুন্ডা পার্টি আমাকে আটকে রাখাতে চাইছে কিন্তু আমাকে আটকানো যাবে না”।

তৃণমূল সুপ্রিমো হুংকার দিয়ে জানান,”ভোট ভাগ করার চেষ্টা করবেন না।ব্যারাক পুরে দেখেছেন বিজেপি পার্টি কি করেছেন।ভালো ভাবে থাকতে চাইলে তৃণমূল এর বিকল্প কিছু হয় না”। এরপরেই ফের শীতল কুচিতে গুলি চালানো নিয়ে সরব হন তিনি। বলেন, “গুলি চালানো কোনো রাজনৈতিক দলের কাজ নয়।যারা বলছে চার জনের বেশি কে গুলি করার কথা তাদের ব্যান করা উচিত”।

এদিন প্রধানমন্ত্রীর রাজ্য সফর নিয়েও কটাক্ষ করেন তিনি। বলেন, “প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিন মিথ্যা কথা বলছেন।বিনা পয়সায় মোদীকে গ্যাস দিতে হবে।চোরদের দল গুন্ডাদের দল অর্ধশিক্ষিত দের দল বিজেপি ।বাংলাকে গুজরাট হতে দেব না।মোদি, অমিত শাহ দাঙ্গাবাজ।আমি এস সি, এস টি ,উদ্বাস্তু দের নিয়ে লড়াই করছি কেউ উচ্ছেদ হবে না।গণতন্ত্র কে হত্যা করছে, মানুষকে হত্যা করছে,কমুনাল দাঙ্গা করছে বিজেপি।গদ্দার দের ভোট দেবেন না।এখন মগের মুলুক চলছে”।

দলনেত্রীর অভিযোগ, “আমি ভ্যাকসিন চেয়েছিলাম দেয়নি।করোনা বাড়ছে তার জন্য দায়ী মোদি সরকার।কোভিডের সময় এরা কেউ আসে নি”। এদিন তিনি বিভিন্ন প্রকল্পের সুযোগ সুবিধা তুলে ধরেন।সুজিত বোস,অদিতি মুন্সী ও তাপস চ্যাটার্জির হয়ে ভোট দেওয়ারও আবেদন করেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.