বাড়ির বাইরে আবর্জনায় পড়ে প্লাস্টিকে মোড়া মৃতদেহ! তদন্তে এসে এ কী আবিষ্কার করল পুলিশ?

বাড়ির বাইরে আবর্জনায় পড়ে প্লাস্টিকে মোড়া মৃতদেহ! তদন্তে এসে এ কী আবিষ্কার করল পুলিশ?
বাড়ির বাইরে আবর্জনায় পড়ে প্লাস্টিকে মোড়া মৃতদেহ! তদন্তে এসে এ কী আবিষ্কার করল পুলিশ?

বাড়ির বাইরে আবর্জনায় পড়ে রয়েছে এক মৃতদেহ! কালো প্লাস্টিকে মোড়া দেহটি। যা দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন প্রতিবেশীরা। নিমেষেই পুলিশের কাছে খবর চলে গিয়েছিল। পুলিশ এসে তদন্তও শুরু করেন। তবে শেষমেশ প্লাস্টিক খুলে যা আবিষ্কার করলেন, তা দেখে বিষ্ময়ে হতবাক হয়ে গেলেন সবাই। সেটি আদতে কোনও সত্যিকারের মৃতদেহই নয়! বরং কালো প্লাস্টিকে মোড়ানো মৃহদেহের আদলে ভরা রয়েছে তুলো। আর সেটি ব্যবহার করা হয়েছিল হ্যালোউইনের দিনে, লোককে বোকা বানানোর উদ্দেশ্য। এবার সেই নকল ‘মৃতদেহ’ দেখে বোকা বনলেন পুলিশের দলই!

ঘটনাটি ঘটেছে ইংল্যান্ডের বেডফোর্ডশায়ারে। সেখানের বাসিন্দা বছর আঠাশের কারা লুইসের বাড়ির বাইরে রাখা ছিল ওই মৃতদেহ। প্রতিবেশীরা উঁকিঝুঁকির ফাঁকেই পুলিশকে খবর পাঠান। এরপর যথারীতি ঘটনাস্থলে পৌঁছেছিল ১০ জন পুলিশের একটি দল। সেসময় বাড়িতে ছিলেন না কারা। তিনি বাড়ি ফিরে দেখেন সেখানে দাঁড়িয়ে দু’টি পুলিশের গাড়ি। এছাড়াও ভীড় করে রয়েছে প্রতিবেশীরা। পুলিশেরা জিজ্ঞাসাবাদও করে তাঁকে। কারা পুলিশকে বোঝান তিনি সত্যিই কাউকে হত্যা করেননি। এরপরই প্লাস্টিক খুলে দেখার কথা বলেন কারা।

প্লাস্টিক খুলে মৃতদেহটি পরীক্ষা করতে গিয়েই অপ্রস্তুতে পড়ে যায় পুলিশ। তাঁরা দেখেন সেটি আসলে হ্যালোউইনের জন্য বানানো নকল মৃতদেহ! যা এতদিন আড়ালেই রেখেছিলেন কারা। সম্প্রতি বাগান পরিস্কার করার জন্য তা বের করেন তিনি। পরে তা ঢোকাতে ভুলে যান। আর তা থেকেই ঘটে বিপত্তি! প্রতিবেশী মায় পুলিশও বিশ্বাস করে নেয়, কারা হয়তো সত্যিই কাউকে হত্যা করে লুকিয়ে রেখেছিলেন। তারপর ওই ‘মৃতদেহ’টি খুলে দেখার পর আশ্বস্ত হয় পুলিশ।

আসল ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই যদিও হাসি-মজায় মেতে ওঠেন কারার প্রতিবেশীরা। পাশাপাশি পুলিশও বিষয়টি ঠাট্টাচ্ছলেই নিয়েছে। পুলিশকে কারা জানান, হ্যালোইনের জন্য তৈরি করা ওই ‘মৃতদেহ’টি আসলে তাঁর ছেলের বিশেষ পছন্দের। তাই সেটিকে ফেলে দেওয়া বা বাতিল করার কথা ভাবেননি তিনি। একই সঙ্গে কারা জানিয়েছেন, এবার থেকে আর মৃতদেহটি বাইরে আবর্জনায় ফেলে রাখবেন না। বরং লোকচক্ষুর আড়ালেই রেখে দেবেন তা।

পাশাপাশি নেটমাধ্যমেও ভাইরাল হয়ে উঠেছে কারার এই ঘটনাটি। নেটিজেনরা অবশ্য প্রশ্ন তুলেছেন, “সত্যিই ওটি নকল তো? পুলিশ ঠিকঠাক করে পরীক্ষা করেছিলেন তো?” নাকি কারা সত্যিই কোনও অপরাধ করে পুলিশের চোখে ধুলো দিয়েছেন! যদিও তা সবই মজার ছলেই করা হয়েছে।