চোখ রাঙাচ্ছে ‘গুলাব’! কিছুক্ষণের মধ্যেই রাজ্যের এই জেলাগুলিতে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস

চোখ রাঙাচ্ছে 'গুলাব'! কিছুক্ষণের মধ্যেই রাজ্যের এই জেলাগুলিতে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস / প্রতীকী ছবি
চোখ রাঙাচ্ছে 'গুলাব'! কিছুক্ষণের মধ্যেই রাজ্যের এই জেলাগুলিতে প্রবল বৃষ্টির পূর্বাভাস / প্রতীকী ছবি

আর কিছুক্ষণের মধ্যেই আছড়ে পড়তে চলেছে সাইক্লোন ‘গুলাব’। রবিবার বিকেল ৩টে থেকে ৫টার মধ্যেই গোপালপুরের কাছে কলিঙ্গপত্তনমে এই সাইক্লোনের ল্যান্ডফলের আশঙ্কা। সাইক্লোনটির অন্ধ্র-ওড়িশা উপকূল অভিমুখে যাওয়ার সম্ভাবনা। তবে এর জেরে পূর্ব-মধ্য ও উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে আরও একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হচ্ছে। ক্রমশ শক্তি বাড়িয়ে সেটি বাংলা ও বাংলাদেশ উপকূলের দিকে আসবে। এই দুইয়ের প্রভাবে সোমবার থেকেই প্রবল বৃষ্টিতে ভিজতে চলেছে কলকাতা সহ রাজ্যের বহু জেলা। যা চলবে বুধবার পর্যন্ত।

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে খবর, গুলাবের ধ্বংসাত্মক প্রভাব সরাসরি পশ্চিমবঙ্গের উপর পড়বে না। তবে তার জেরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হবে। তার জেরে রাজ্য জুড়ে ফের দুর্যোগের আশঙ্কা। এর বেশি প্রভাব পড়বে কলকাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুরে। একইসঙ্গে দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলিতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। সঙ্গে ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হওয়া বইবে। এছাড়াও হাওড়া, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রামে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা।

এদিকে আজ সকাল থেকেই কলকাতার আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। বিক্ষিপ্তভাবে কয়েক পশলা বৃষ্টিতে ভিজতে পারে শহর সহ আশেপাশের এলাকা। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, কলকাতার তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি বেশি। গতকাল শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি কম। বাতাসে জলীয়বাষ্পের সর্বোচ্চ পরিমাণ ৯৭ শতাংশ।

উল্লেখ্য, সাইক্লোন ‘গুলাব’ ও জোড়া নিম্নচাপের জন্য আগাম সতর্কতা নিয়ে শুরু করেছে রাজ্য সরকার৷ ইতিমধ্যেই কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের বেশ কয়েকটি জেলায় রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে৷ এছাড়াও শনিবার রাত ১২টা থেকে শুরু হচ্ছে সর্বক্ষণের কন্ট্রোল রুম। কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বে থাকছেন একজন যুগ্ম কমিশনার এবং একজন ডিসি। পুলিশের পাশাপাশি প্রস্তুত থাকছে দমকল, কেএমসি, পিডব্লুডি-ও। আগাম সতর্ক থাকছে সিইএসসি কর্তৃপক্ষও। পাশাপাশি কলকাতা পুরসভা তৎপরতায় সমস্ত পাম্পিং স্টেশনকেও নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে সতর্ক থাকার জন্য। ভারী বৃষ্টির শুরু হলেই ৭৬ পাম্পিং স্টেশনের সমস্ত পাম্প চালানোর নির্দেশ রয়েছে।

উপকূলবর্তী এলাকায় ইতিমধ্যেই বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর ১৫ দল মোতায়েন করা হয়েছে। কলকাতায় থাকছে ৪ দল। একই সঙ্গে, দুর্যোগের সম্ভাবনায় আগামী ৫ অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের সমস্ত ছুটি বাতিল করে দিয়েছে নবান্ন। সবকটি জেলা প্রশাসনের সমস্ত আধিকারিকদেরও আগাম সতর্ক করা হয়েছে।