ঠাণ্ডা মাথায় খুনের পরিকল্পনা! ডিনারের পর, গঙ্গার ধারে নিয়ে গিয়ে বাবাকে নৃশংসভাবে খুন করল মেয়ে

ঠাণ্ডা মাথায় খুনের পরিকল্পনা! ডিনারের পর, গঙ্গার ধারে নিয়ে গিয়ে বাবাকে নৃশংসভাবে খুন করল মেয়ে
ঠাণ্ডা মাথায় খুনের পরিকল্পনা! ডিনারের পর, গঙ্গার ধারে নিয়ে গিয়ে বাবাকে নৃশংসভাবে খুন করল মেয়ে/ প্রতীকী ছবি

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ঠাণ্ডা মাথায় পরিকল্পনা করে নিজের বাবাকে নৃশংসভাবে খুন করল মেয়ে। এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর বন্দর থানা এলাকার তপসিয়া এলাকায়। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। এই ঘটনায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে, গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত তরুণীকে। এই মুহূর্তে তাকে জেরা করা হচ্ছে।

জানা গিয়েছে, মৃতের নাম বিশ্বনাথ আঢ্য। তপসিয়ার ক্রিস্টোফার রোডের বাসিন্দা ওই মৃত ব্যক্তি। বেশ কয়েকদিন আগেই পত্নীবিয়োগ হয়েছে। মেয়েকেই নিয়েই থাকতেন মৃত বিশ্বনাথ আঢ্য। রবিবার রাতে বিশ্বনাথবাবুর মেয়ে পিয়ালী তাঁকে রেস্তরাঁয় নিয়ে যায়। সেখানে খাওয়া-দাওয়ার সঙ্গে মদ্যপানও করেন ওই ব্যক্তি। এরপর নেশাগ্রস্ত বাবাকে নিয়ে মেয়ে যায় চাঁদপাল ঘাটে। সেখানে দীর্ঘক্ষণ কথাবার্তা হয় দু’জনের মধ্যে। সেখানেও ওই ব্যক্তির নেশা আরও বাড়লে, সেই সময়ই তাঁর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় অভিযুক্ত মেয়ে। এমনটাই পুলিশকে পিয়ালী জেরায় জানিয়েছে। পরে বিষয়টি জানাজানি হতেই, এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন মৃত বিশ্বনাথবাবুর ভাই। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতেই পুলিশ গ্রেফতার করে পুলিশ।

কিন্তু কেন এই চরম সিদ্ধান্ত? পিয়ালীকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদের পর, তদন্তকারী অফিসাররা জানিয়েছেন যে, ছোট থেকেই বাবার কাছে অত্যাচারিত হত সে। মায়ের মৃত্যুর পর, পিয়ালীর উপর তাঁর বাবার অত্যাচারের মাত্রা আরও বাড়ে। বিয়ের পর, কিছুদিন বন্ধ থাকলেও, পিয়ালীর বিবাহবিচ্ছেদের পর, ফের বাবার কাছে এসে থাকতে শুরু করলে, সেই অত্যাচারের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। এর জেরে বাবার উপর তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয় তার। আর সেই ক্ষোভ থেকেই এই সিদ্ধান্ত।

পুলিশের পক্ষ থেকে এই ঘটনা প্রসঙ্গে জানানো হয়েছে যে, পিয়ালীর থেকে পাওয়া সব তথ্য যাচাই করে দেখা হচ্ছে। প্রয়োজনে মৃতের পরিবারের অন্যান্য সদস্য, প্রতিবেশীদেরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এর পাশাপাশি, পিয়ালীর একার পরক্ষে আদৌ এই কাজ সম্ভব কিনা? তাঁর সঙ্গে অন্য আরও অন্য কেউ ছিল কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.