‘রামকৃষ্ণ সবথেকে বড় অশিক্ষিত, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও তো বেশি দূর পড়েননি’, ফের বেফাঁস মন্তব্য দিলীপের

‘রামকৃষ্ণ সবথেকে বড় অশিক্ষিত, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও তো বেশি দূর পড়েননি’, ফের বেফাঁস মন্তব্য দিলীপের
‘রামকৃষ্ণ সবথেকে বড় অশিক্ষিত, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরও তো বেশি দূর পড়েননি’, ফের বেফাঁস মন্তব্য দিলীপের

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বেফাঁস মন্তব্যের জন্য বরাবরই খ্যাত বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক দিলীপ ঘোষ। এবারও তেমনই বেফাঁস মন্তব্য করে নতুন করে বিতর্কে জড়ালেন তিনি। এবার রবীন্দ্রনাথ ও রামকৃষ্ণকে নিয়ে কথা বলে বিতর্কে জড়ালেন দিলীপ ঘোষ। বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজ্য বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা তথাগত রায়ের সঙ্গে বচসায় জড়িয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তাঁদের দু’জনের মধ্যেই অশান্তি চলাকালীন তথাগত দিলীপ ঘোষকে অশিক্ষিত বলেছিলেন। তাঁর সেই মন্তব্যে জবাব দিতে গিয়ে এবার আরও এক বেফাঁস মন্তব্য করেছেন দিলীপ ঘোষ।

তথাগত রায়ের ‘অশিক্ষিত’ মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘কে কটা ক’টা বই পড়েছেন, কার ক’টা ডিগ্রি আছে, আমাদের দেশে এটা কেউ ভাবেননি। সব চেয়ে বড় অশিক্ষিত তো রামকৃষ্ণ দেব ছিলেন। অথচ সবার বাড়িতে তাঁর বই রয়েছে। তাঁর বাণী নিয়েই এগিয়েছে।’ তাঁর আরও সংযোজন, ‘রবীন্দ্রনাথও খুব বেশিদূর লেখাপড়া করেননি। অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়েছেন মাত্র। এটা ভারতের সংস্কৃতি। যারা দেশকে চিনতে পারে না, সেটা তাঁদের দায়।’ বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের নিন্দার ঝড় উঠেছে বিভিন্ন মহলে।

দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছেন তৃণমূলেরও অনেকেই। মূলত তথাগত রায়কে জবাব দিতে গিয়েই এই মন্তব্য করেছেন দিলীপ ঘোষ। তৃণমূলের প্রবীণ সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘দিলীপ ঘোষ নিজেই অশিক্ষিত। তাই দলের রাজ্য সভাপতি পদ থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শনিবার তথাগতকে ‘দল ছেড়ে দিন’ বলে তোপ দেগেছিলেন দিলীপ। বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপি-র ভরাডুবির পরে দিলীপ ছাড়াও রাজ্যে শীর্ষ নেতৃত্বের বেশ কয়েক জনের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নেতাদের সমালোচনাতেও সরব হন তথাগত।

তারই প্রেক্ষিতে দিলীপ রবিবার বলেন, ‘কত দিন আর লজ্জা পাবেন। দল ছেড়ে দিন। যাঁরা দলের জন্য কিছুই করেননি, যাঁদের দল সব থেকে বেশি দিয়েছে, তাঁরাই সব থেকে বেশি দলের ক্ষতি করেন। আমাদের দুর্ভাগ্য এটা।’ এর পাল্টা তোপ দাগেন তথাগতও। একটি ফেসবুক পোস্টে তিনি লেখেন, ‘জয় বন্দ্যোপাধ্যায়ও বিজেপি ছাড়ার কথা ঘোষণা করলেন। এই ক্রমাগত রক্তক্ষরণ বঙ্গ বিজেপি-র জন্য ঠিক নয়। দিলীপ ঘোষ আমাকে উপদেশ দিয়েছিলেন, দলত্যাগ করার জন্য যদি আমি দলকে নিয়ে লজ্জিত হই। আমি তাঁর কথায় গুরুত্ব দিই না। আমি এখন দলের এক জন সাধারণ সদস্য। আামি এই ভাবেই থাকব এবং দলকে সঠিক পথে রাখার চেষ্টা করব।’

সংবাদমাধ্যমকে তিনি আরও বলেন, ‘এর জবাবে আমি যা বলতে পারি, তা দিলীপ ঘোষের বোধগম্য হবে না। অশিক্ষিত হলে যা সমস্যা হয়। আমি কিছুই বলব না। কারণ সেটা পণ্ডশ্রম হবে। আমি দিলীপ ঘোষের বক্তব্যকে বিন্দুমাত্র গুরুত্ব দিচ্ছি না।’

তারই প্রেক্ষিতে এবার রামকৃষ্ণ, রবীন্দ্রনাথের উদাহরণ টানলেন দিলীপ ঘোষ। আবার এটা নিয়েও কটাক্ষ করে তথাগত টুইটারে লিখেছেন, ‘হা ঈশ্বর! বাঙালি হিন্দু পরিবারে জন্মে অবতারবরিষ্ঠ ঠাকুর রামকৃষ্ণ আর বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথের নামে এ-ও শুনতে হল?’