‘নিজের হার বুঝতে পেরেছেন’! বয়ালের কান্ড নিয়ে মমতাকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

'নিজের হার বুঝতে পেরেছেন'! বয়ালের কান্ড নিয়ে মমতাকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের
'নিজের হার বুঝতে পেরেছেন'! বয়ালের কান্ড নিয়ে মমতাকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এবার ট্রাম্পের সঙ্গে তুলনা করলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, ট্রাম্পের মতই স্বৈরাচারী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মূলত গতকাল মুখ্যমন্ত্রীর বয়ালে বুথে যাওয়ার প্রসঙ্গেই এমনটা মন্তব্য করেন দিলীপ বাবু।

গতকাল নন্দীগ্রামে ভোট চলাকালীন অশান্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।এর জেরে বহু অভিযোগ আসে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। এরপরেই দুপুরে নন্দীগ্রামের রেয়াপারার বাড়ি থেকে বেরিয়ে বয়ালের সাত নম্বর বুথে যান তিনি। এদিকে তাঁকে দেখেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। এই প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষ বলেন, “এই ধরনের স্বৈরাচারী শাসনে এটাই স্বাভাবিক ছিল। ট্রাম্পকেও আপনারা দেখেছেন। ইনিও তাই করতে পারেন। হার বুঝতে পেরেছেন। সেজন্য শেষ পর্যন্ত নিজেই বেরিয়ে গিয়ে গন্ডগোল করার চেষ্টা করেছেন। দু ঘন্টা বুথে বসা ওনাকে শোভা দেয় না। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবেও না এমনকি ক্যান্ডিডেট হিসেবেও না।

এদিকে, গতকাল বয়ালের কান্ড নিয়ে রাজ্যপালকে ফোন করে নালিশ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরপরেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, যেখানে রাজ্যপাল ও নবান্নের এত দ্বৈরথ সেখানে রাজ্যপালকে কেন ফোন করলেন তিনি। এই নিয়ে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন, “ওনার নেতারা প্রচার ছেড়েছেন। হাল ছেড়েছেন। অভিযোগ করা শুরু করেছেন। অভিযোগ তো আমরা করবো। উনি আমাদের আসন নিতে চলেছেন। আমরা বিরোধীরা অধিকার না পেয়ে অভিযোগ করতাম। আগামিদিনে উনি বিরোধী হিসেবে দাঁড়াবে সেটাই প্রমাণ করছেন। রাজ্যপালের এত বিরোধিতা তারপর ফোন সময় খারাপ হলে অনেক কিছই করেন। সময় ভাল থাকলে পাত্তা দেননি। এর থকে মানুষ বুঝে গেছে, কেন এই পরিবর্তন”।

অন্যদিকে, গতকাল প্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অন্য কোথাও থেকেও হয়ত মনোনয়ন জমা দিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। যদিও এই প্রসঙ্গ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের মন্তব্য, “এখনও ফেজ বাকি আছে। চান্স নেবেন ভাবছিলেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী যেভাবে পাথর ফেলেছেন, তাতে আর সেই সম্ভাবনা নেই”। একইসঙ্গে নিজেদের জয় নিয়েও আশাবাদী রাজ্য বিজেপি সভাপতি। বলেন, “আমার মনে হয় হাফ সেঞ্চুরি করে ফেলেছি।”

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.