বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২

কবে থেকে রাজ্যে চালু হবে দুয়ারে রেশন প্রকল্প? কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী?

১০:৫৮ এএম, জুন ১৫, ২০২১

কবে থেকে রাজ্যে চালু হবে দুয়ারে রেশন প্রকল্প? কী বললেন মুখ্যমন্ত্রী?

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ নির্বাচনের আগে ইস্তাহারে নানা প্রকল্প শুরু করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে। এর মধ্যে অন্যতম ছিল ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প। নির্বাচনে জয়লাভের পর, তৃতীয়বারের জন্য বাংলার ক্ষমতায় এসে, তৃণমূল কংগ্রেস শাসিত সরকার সেইসব প্রকল্প বাস্তবে রূপায়িত করতে বদ্ধপরিকর। সেই সূত্রেই করোনাকালে দুয়ারে রেশন প্রকল্প শীঘ্রই চালু করতে বদ্ধপরিকর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর তাই দুয়ারে রেশন প্রকল্প শুরু করা নিয়ে কিছুটা ইঙ্গিত দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্ভবত আগামী আগস্ট মাস থেকেই রাজ্যে শুরু হতে চলেছে এই প্রকল্প। সোমবার জেলাশাসকদের সঙ্গে বৈঠকে এমনই ইঙ্গিত দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই পরীক্ষামূলকভাবে এই প্রকল্প চালু হয়েছে। তবে, রাজ্যের সর্বত্র এই প্রকল্প এখনও চালু করা সম্ভব হয়নি। যদিও নবান্ন সূত্রে খবর, সবকিছু ঠিক থাকলে, আগস্ট মাসেই চালু হয়ে যাবে এই প্রকল্প।

নবান্ন সূত্রে খবর, সোমবার এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী জেলাশাসকদের সঙ্গে কথা বলেন। উপস্থিত ছিলেন খাদ্য দফতরের আধিকারিকরাও। এই বৈঠকের আলোচনাতেই সামনে আসে যে, দুয়ারে রেশন প্রকল্প চালু করতে দুই থেকে তিন মাস সময় লাগবে রাজ্য সরকারের। তার মূল কারণ, এখনও পর্যন্ত অনেকের আধার লিঙ্ক করা সম্ভব হয়নি। আর সেই কাজ সম্পূর্ণ হতে, আরও কিছুটা সময় লাগবে। সোমবার জেলাশাসক এবং খাদ্য দফতরের সঙ্গে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর এই বিষয়েই আলোচনা হয় বলে নবান্ন সূত্রের খবর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের নির্বাচনী ইস্তাহারে বড় চমক হিসেবে ছিল এই দুয়ারে রেশন প্রকল্প। করোনা অতিমারি পরিস্থিতিতে দেরি না করে, দ্রুত দুয়ারে রেশন প্রকল্প শুরু করে দিতে চাইছে রাজ্য সরকার। পাইলট প্রকল্পে প্রতিটি জেলায় একটি করে রেশন দোকান থেকে সংলগ্ন একটি পাড়া বা গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে রেশন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়৷ ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প নিয়ে রাজ্যের খাদ্য দফতরের প্রধান সচিবের সঙ্গে ফুড কমিশনারের বৈঠকের পরেই পাইলট প্রকল্প শুরু হয়৷ বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, এই প্রকল্প চালানোর জন্য প্রতি কুইন্টালে ২০০ টাকা করে রেশন ডিলারদের কমিশন দিতে হবে৷ প্রথম ১৫ দিন রেশন দোকান থেকেই এই প্রকল্পের জন্য জিনিস নিয়ে সরবরাহ করবেন রেশন ডিলাররা৷ প্যাকেজিং বাবদও আলাদা খরচ দেবে রাজ্য৷