লকডাউনে বান্ধবীকে নিয়ে মদ্যপ অবস্থায় লং ড্রাইভ! গাড়ি আটকানো হলে পুলিশকেও ধাক্কা দিয়ে পালানোর চেষ্টা যুবকের

লকডাউনে বান্ধবীকে নিয়ে মদ্যপ অবস্থায় লং ড্রাইভ! গাড়ি আটকানো হলে পুলিশকেও ধাক্কা দিয়ে পালানোর চেষ্টা যুবকের
লকডাউনে বান্ধবীকে নিয়ে মদ্যপ অবস্থায় লং ড্রাইভ! গাড়ি আটকানো হলে পুলিশকেও ধাক্কা দিয়ে পালানোর চেষ্টা যুবকের

লকডাউন ভেঙে বান্ধবীকে নিয়ে লংড্রাইভে যাচ্ছিলেন যুবক! মাঝপথে পুলিশ বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ কনস্টেবল এবং সিভিক ভলেন্টিয়ারকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় সে। ঘটনাটি ঘটেছে ইএম বাইপাসের পঞ্চানন গ্রামে।

শনিবার সকাল থেকেই লকডাউন সফল করতে রাস্তায় নেমেছে পুলিশ। সচেতন হয়েছেন সাধারণ মানুষ, রাজ্যের সার্বিক চিত্র জানান দিচ্ছে এমনটাই। কিন্তু সার্বিক সচেতনতার মধ্যেও বিচ্ছিন্ন ঘটনা দেখা গেল ইএম বাইপাসে।

এদিন সকাল দশটা নাগাদ একটি গাড়ি বাইপাস ধরে উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে যাচ্ছিল। যেহেতু লকডাউন চলছে রাজ্যজুড়ে, তাই কেন হঠাৎ এই গাড়িটি রাস্তায় তা জানতে গাড়িটিকে থামানোর চেষ্টা করে পুলিশ। গাড়িচালককে থামতে ইশারা করলেও সে থামেনি। বরং উল্টো দিকে গতি বাড়িয়ে পালানোর চেষ্টা করে। ঘটনাস্থলে কর্তব্যরত এক পুলিশ কর্মীর কথায়, গাড়িটি উল্টো দিকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। সেইসময় একটি পুলিশ গাড়ির মুখোমুখি হয়। এরপরে গার্ডরেল দিয়ে গাড়িটি ঘিরে ফেলে পুলিশকর্মীরা।

তারপর গাড়ির চালককে পুলিশ নেমে আসতে ইশারা করলে সিভিক ভলেন্টিয়ার এবং একজন পুলিশ কনস্টেবলকে ধাক্কা মেরে পালানোর চেষ্টা করে চালকের আসনে বসে থাকা তরুণ। এরপর এই এলাকার লোকজন ছুটে আসে। ঘটনাস্থলে কর্তব্যরত সিভিক ভলেন্টিয়ার বাবাই মল্লিক জানান, স্থানীয় বাসিন্দারা সঙ্গে সঙ্গে ছুটে না আসলে গাড়িটি তাদেরকে পিষে চলে যেত।

স্থানীয় বাসিন্দারা গাড়িটিকে ঘিরে ধরলে গাড়ি থেকে নেমে আসে দুই যুবক এবং এক তরুণী। তাদের আটক করেছে পুলিশ। সূত্রে খবর, গাড়ি চালাচ্ছিল রৌনক আগরওয়াল নামক এক যুবক। জামিন অযোগ্য ধারায় তাদের নামে মামলা রুজু করেছে পুলিশ । পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ওই দুই যুবক এবং গাড়িতে থাকা তরুণীটি মদ্যপ অবস্থায় ছিল। তাদের মেডিকেল টেস্ট করানো হচ্ছে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.