আগামী চার দফার ভবিষ্যৎ কী? সিদ্ধান্ত নিতে শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠক ডাকল নির্বাচন কমিশন

আগামী চার দফার ভবিষ্যৎ কী? সিদ্ধান্ত নিতে শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠক ডাকল নির্বাচন কমিশন
আগামী চার দফার ভবিষ্যৎ কী? সিদ্ধান্ত নিতে শুক্রবার সর্বদলীয় বৈঠক ডাকল নির্বাচন কমিশন

ভোট মুখী বঙ্গে ক্রমেই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এদিকে রাজ্যে বাকি এখনো চার দফার ভোট। এই পরিস্থিতিতে কীভাবে নির্বাচন করানো যেতে পারে বা কী কী নিয়ম বিধিমালা প্রয়োজন তা নিয়ে আলোচনা করতেই আগামী ১৬ তারিখ দুপুর দুটোয় সর্বদলীয় বৈঠক ডাকল নির্বাচন কমিশন। বুধবার সমস্ত দলের সভাপতিদের উদ্দেশ্যে চিঠি দিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকের হাজির থাকার আবেদন জানানো হয়েছে কমিশনের তরফে।

কমিশন সূত্রে খবর, রাজ্যের স্বীকৃত প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দলের একজন করে প্রতিনিধিকে পাঠাতে অনুরোধ করা হয়েছে। এদিনের বৈঠকে রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা ছাড়াও উপস্থিত থাকবেন এডিজি আইন-শৃঙ্খলা জগমোহন এবং রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ন স্বরূপ নিগম। পাশাপাশি ভোটের জন্য নিযুক্ত বিশেষ পর্যবেক্ষকরা ওই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেন বলে সূত্রের খবর।

পঞ্চম দফার ভোট প্রচার আগামীকাল শেষ হলেও বাকি থাকবে আরো তিন দফার ভোটের প্রচার। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে যেভাবে করোনা বাড়ছে তাতে কিভাবে প্রচার করা হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন। সূত্রের খবর শারীরিকভাবে প্রচার জনসভা বন্ধ করে দিয়ে ভার্চুয়াল ভাবে প্রচার করার সিদ্ধান্ত হতে পারে।

প্রসঙ্গত কলকাতা হাইকোর্ট গতকাল রায় দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে, রাজ্যে রাজনৈতিক প্রচার এর ক্ষেত্রে করো না বিধি যথাযথ পালন করা হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে জেলা শাসক এবং রাজ্যের নির্বাচনী আধিকারিককেই। কোথাও কোভিড বিধি ভঙ্গ হলে সেই দায় বর্তাবে জেলাশাসক এবং রাজ্যের নির্বাচনী আধিকারিকের উপর। এর পরেই তড়িঘড়ি সর্বদলীয় বৈঠক ডাকল জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

অন্যদিকে ইতিমধ্যেই করোনার ধাক্কা সামলাতে নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিয়েছে আলিমুদ্দিন। বামফ্রন্টের তরফে জানানো হয়েছে, এই করোনা পরিস্থিতিতে আগামী দফার নির্বাচনের প্রচারে কোন বড়োসড়ো ভিড় করবে না তারা। জনসভা না করে তার বদলে মানুষকে সচেতন করার ওপর জোর দেবে বামফ্রন্ট। এ প্রসঙ্গে পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম জানিয়েছেন, “যেখানে ভোট হয়েছে বা যেখানে ভোট হবে সেই সব জায়গায় একই ভাবে বিগত এক বছরের মতো আমরা মানুষকে যেভাবে পরিষেবা দিয়েছি সেভাবেই পরিষেবা দেব আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো বাস্তব পরিস্থিতি মেনে সবাইকে সচেতন করব এবং অসহায় মানুষের কাছে পৌঁছে যাবো”।