প্যাকেজিং পণ্যের গায়ে অবশ্যই লিখতে হবে এই তথ্য! নয়া আইন আনল কেন্দ্র

প্যাকেজিং পণ্যের গায়ে অবশ্যই লিখতে হবে এই তথ্য! নয়া আইন আনল কেন্দ্র
প্যাকেজিং পণ্যের গায়ে অবশ্যই লিখতে হবে এই তথ্য! নয়া আইন আনল কেন্দ্র

বর্তমানে বহু নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যবস্তুই প্যাকেজড পণ্য হিসেবে বিক্রি হয়ে থাকে। চা, দুধ, বিস্কুট, আটা, ময়দা সহ সবকিছুই এখন প্যাকেজড পণ্য। আর এই বস্তুগুলি কেনার সময় সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে এক নতুন আইন নিয়ে এল কেন্দ্রীয় সরকার। এবার থেকে সমস্ত প্যাকেজড বস্তুর গায়ে লিখতে হবে একাধিক তথ্য। এই তথ্যগুলি না লেখা থাকলেই বিপদ।

এই নতুন আইন অনুসারে, এমআরপি (MRP) সহ একগুচ্ছ তথ্য লিখতে হবে প্যাকেটের গায়ে। যদি কোনো গ্রাহক এক কেজি বা এক লিটার ওজনের কোন প্যাকেজড পণ্য কেনেন তাহলে প্রতি ইউনিটের কত দাম ধরা হচ্ছে তা লিখতে হবে৷ একইভাবে এক কেজি বা এক লিটারের কম ওজনের ক্ষেত্রেও কত ইউনিটে কত দাম ধরা হচ্ছে তা প্যাকেটের গায়ে উল্লেখ করতে হবে৷

এই নতুন নিয়ম করা হয়েছে এই কারণে যাতে গ্রাহকরা বুঝতে পারেন যে জিনিসটি কিনছেন সেই জিনিসটি কিনতে প্রতি লিটার অথবা প্রতি গ্রামে কত খরচ হচ্ছে। এর ফলে প্যাকেজড পণ্য কেনার আগে সাধারণ মানুষ আরও বেশি সতর্ক হবেন বলেই মনে করছে কেন্দ্র। জানা গিয়েছে, আগামী বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের এপ্রিল মাস থেকে এই নতুন নিয়ম কার্যকর হতে চলেছে।

এছাড়াও নতুন নিয়মে প্যাকেজড পণ্যের উৎপাদন তারিখ ও বছর উল্লেখের ক্ষেত্রে বদল আনা হয়েছে। বর্তমানে প্যাকেটের গায়ে লেখা থাকে প্যাকিং করার তারিখ ও বছর। কিন্তু কেন্দ্রের কোন পণ্যের গুণগত মান উৎপাদনের তারিখের সঙ্গেও যুক্ত। তাই উৎপাদনের তারিখও উল্লেখ থাকতে হবে।

পাশাপাশি নতুন নিয়ম অনুযায়ী, সংশোধিত লিগ্যাল মেট্রোলজি বিধির অধীনে দুধ, চা, বিস্কুট, ভোজ্য তেল, আটা, কোল্ড ড্রিংকস, পানীয় জল, শিশুর খাদ্য, ডাল, রুটি, ডিটারজেন্ট, সিরিয়াল, সিমেন্ট সহ ১৯ ধরণের পণ্যের প্যাকেজিংয়ের পরিমাণের নিয়মগুলিকে তুলে নেওয়া হচ্ছে।। ফলে প্যাকেটিং করার সময় পরিমাণ লেখার যে বাধ্যবাধকতা ছিল তা আর থাকছে না। এই নিয়ম করা হয়েছে যাতে এই সব দ্রব্যেত প্রস্তুতকারকরা নিজেরাই স্বাধীনভাবে কত পরিমাণ পণ্য দিয়ে প্যাকেটিং করবেন বেছে নিতে পারেন।