আজ থেকেই সরকারি কর্মচারীদের মানতে হবে এই নিয়ম! নির্দেশিকা জারি কেন্দ্রের

আজ থেকেই সরকারি কর্মচারীদের মানতে হবে এই নিয়ম! নির্দেশিকা জারি কেন্দ্রের
আজ থেকেই সরকারি কর্মচারীদের মানতে হবে এই নিয়ম! নির্দেশিকা জারি কেন্দ্রের

ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণে এসেছে দেশের করোনা পরিস্থিতি। আর তার ফলেই কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে সরকারি কর্মচারীদের দেওয়া বেশ কিছু সুযোগ সুবিধায় এবার কাঁটছাট করা হচ্ছে। করোনা আবহে এতদিন যে সকল সুযোগ সুবিধা পেতেন সরকারি কর্মীরা, আজ, ৮ নভেম্বর থেকেই সেই সব সুবিধা দেওয়া বন্ধ করে দিল সরকার। কেন্দ্রের তরফে ইতিমধ্যেই এই সংক্রান্ত একটি নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। সেখানে করোনা পরবর্তী সময়ে সরকারি কর্মীদের অফিসে উপস্থিতি সম্পর্কিত একটি গাইডলাইনও প্রকাশ করা হয়েছে।

কেন্দ্রের নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, সরকারি কর্মচারীদের এবার থেকে নির্দিষ্ট কাজের সময় অনুযায়ী অফিসে উপস্থিত থাকতে হবে। আর এই উপস্থিতি নথিভূক্ত করার জন্য সোমবার থেকে ফের বায়োমেট্রিক সিস্টেম (Biometric Attendance) চালু করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারি অফিসগুলিতে বায়োমেট্রিক অ্যাটেনডেন্স চালু করার বিষয়ে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে কেন্দ্র সরকারের ডেপুটি সেক্রেটারি উমেশ কুমার ভাটিয়া জানিয়েছেন, করোনাকালে পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে কম সংখ্যক কর্মীদের অফিসে ডাকা এবং কাজের সময় কম করার ছাড় দেওয়া হয়েছিল। এসব আগেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি ৮ নভেম্বর থেকে বায়োমেট্রিক সিস্টেমে অ্যাটেনডেন্স দেওয়াও ফের বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

বায়োমেট্রিক সিস্টেম চালু করার প্রসঙ্গে সরকারের তরফে একটি গাইডলাইনও প্রকাশিত হয়েছে। সেই গাইডলাইন অনুযায়ী, এই বায়োমেট্রিক সিস্টেম রাখতে হবে খোলা পরিবেশে, বদ্ধ জায়গায় তা রাখা চলবে না। বায়োমেট্রিক সিস্টেমের কাছে স্যানিটাইজার রাখা বাধ্যতামূলক। সরকারি কর্মীরা বায়োমেট্রিক সিস্টেমে নিজেদের উপস্থিতি নথিভূক্ত করার আগে প্রথমে হাত স্যানিটাইজ করতে হবে।

এছাড়াও প্রত্যেকের মুখে মাস্ক থাকা আবশ্যিক। উপস্থিতি নথিভূক্ত করার সময় নিজেদের মধ্যে ছয় ফুটের দূরত্বও বজায় রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গাইডলাইনে আরও বলা হয়েছে, বায়োমেট্রিক সিস্টেমের যে টাচপ্যাড রয়েছে, তা পরিষ্কার রাখার জন্য সর্বদা একজন কর্মী থাকবেন। ওই কর্মী প্রতিবার বায়োমেট্রিকের টাচপ্যাড পরিষ্কার করে দেবেন।