ফের টিকটক বিপর্যয়, র‍্যাম্প শো করতে গিয়ে নিখোঁজ হলেন ‘টিকটকার’ গৃহবধূ

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ নিজেদের পরিচিতি বাড়ানোর লক্ষ্যে দিন দিন টিকটকে ভিডিও করার নেশা বেড়েই চলেছে। এই টিকটকের ইতিবাচক ভূমিকা মানুষের জীবনে থাকলেও তা নিতান্তই কম। তার তুলনায় এর ক্ষতিকারক দিকগুলিই যেন বারবার উঠে এসেছে বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে। এবারও প্রকশ্যে এল এরকমই এক ঘটনা। টিকটকে নিজের জনপ্রিয়তা এতটাই বেড়েছিল যে দিল্লিতে র‍্যাম্প শয়ে অংশগ্রহনের সুযোগ পেয়েছিলেন হুগলির চুঁচুড়ার এক গৃহবধূ। স্ত্রীর খোঁজ না মেলায় অবশেষে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে ওই গৃহবধূর স্বামী।

চুঁচুড়ার ভগবতীডাঙার বাসিন্দা প্রসেনজিত মন্ডলের সাথে কয়েক বছর আগেই বিয়ে হয় প্রতিমার। তাঁদের একটি পাঁচ বছরের মেয়েও রয়েছে। পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে, ওই গৃহবধূ সারাদিন টিকটকে ভিডিও করতেই ব্যস্ত থেকতেন। জাসমিন নামে তাঁর একটি প্রোফাইলও ছিল। ৯ মাসের মধ্যেই ৪ লক্ষ ফলোয়ার্স ছাড়িয়ে যায় জাসমিনের। কয়েকমাসেই পরিচিত এতটাই বেশি হয়ে যায় যে পাটনা, দিল্লি, রাজস্থান সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে র‍্যাম্প শো এর জন্য তাঁর ডাক পড়ত। স্বামী প্রসেনজিত মন্ডলও স্ত্রীর কাজে সাই দিয়েছিলেন। টিকটকে ভিডিও বানিয়ে বেশ কয়েক হাজার টাকা প্রতি মাসে রোজগারও করছিলেন ওই মহিলা। স্ত্রীকে তাঁর কাজে উৎসাহ দিতে তাঁকে দুটি দামি মোবাইল ফোন পর্যন্ত কিনে দেন স্বামী।

জানা গিয়েছে বিভিন্ন সময় ওই মহিলা বাইরে যেতেই ভিডিও শ্যুটের জন্য। প্রতবার তাঁর সাথে যেতে পারতেননা প্রসেনজিত বাবু। তাই কখনও কখনও তিনি টড়েন বাঁ বিমানে স্ত্রীকে তুলে দিয়ে চলে আসতেন। এবারও তাই হয়েছিল। ৩১ ডিসেম্বর ওই গৃহবধূ দিল্লিতে র‍্যাম্প শো-এ যোগদানের জন্য বাড়ি থেকে বেরোন। কিন্তু হাওড়া স্টেশনে ট্রেনে ওঠার পরেই বনসনেহয়ে যায় তাঁর ফোন। কিছুদিন পর ওই মহিলাকে ফোনে পাওয়া গেলে তিনি যানান র‍্যাম্প শো-এর জন্য এখন তিনি নিউ দিল্লিতে রয়েছেন। এক অপরিচিত যুবকের সাথে সেখানে ওই মহিলা যান বলেও জানান। তাঁর পর থেকে স্ত্রীর সাথে কোন যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি স্বামী প্রসেনজিত মন্ডল। অবশেষে কোন উপায় না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়ে নিখোঁজ ডায়রি করেন তিনি। তবে এখনও পর্যন্ত কোন খোঁজ মেলেনি ওই মহিলার।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.