রবিবার, ০২ অক্টোবর, ২০২২

মাঠেই মেজাজ হারালেন কোহলি, যা বললেন শোনা গেল স্টাম্প মাইকে! তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া

১১:২৬ এএম, জানুয়ারি ১৪, ২০২২

মাঠেই মেজাজ হারালেন কোহলি, যা বললেন শোনা গেল স্টাম্প মাইকে! তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া

খেলার মাঠে বিরাট কোহলির মেজাজ হারানোর ঘটনা নতুন কিছু নয়। যে কোনও ছোট বড় বিষয়ে অপছন্দ হলেই মেজাজ হারাতে দেখা যায় তাঁকে। শুধু তাই নয়, পাশাপাশি গালিগালাজ বা কুমন্তব্য করতেও প্রায়শই শোনা যায়। এবার কেপটাউনেও ফিরল সেই চেনা দৃশ্য। তৃতীয় টেস্টের তৃতীয় দিন মাঠে মেজাজ হারিয়ে বিরক্তি নিয়ে কুমন্তব্য করতে শুরু করলেন কোহলি। যা ধরা পড়ল স্টাম্প মাইকেও।

ঠিক কী ঘটেছিল? কেপটাউনে তৃতীয় দিন দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয় ইনিংসে প্রোটিয়া ক্যাপ্টেন ডিন এলগার ব্যাট করার সময় এই ঘটনা ঘটে। ভারতীয় স্পিনার অশ্বিনের ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ আউট হন তিনি। তাঁকে আউট দেন ফিল্ড আম্পায়ার। কিন্তু সে সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে রিভিউ নেন এলগার। হকআইতে ধরা পড়ে বল একটুর জন্য উইকেটে লাগছে না। তাই ফিল্ড আম্পায়ারের আউটের সিদ্ধান্তকে খারিজ করে এলগারকে নট-আউট ঘোষণা করেন টিভি আম্পায়ার।

https://twitter.com/SkyCricket/status/1481665997211844617?t=o_OdGv9N1sz70YRtgag5Vw&s=19

এদিকে জায়ান্ট স্ক্রিনে এই সিদ্ধান্ত ভেসে উঠতেই মেজাজ হারান কোহলি। তিনি এবং সঙ্গে মায়াঙ্ক আগারওয়াল, অশ্বিন, কেএল রাহুল, প্রত্যেকেই মেজাজ হারিয়ে কুমন্তব্য করতে থাকেন। যা ধরা পড়ে স্টাম্প মাইকে। বল-ট্র্যাকিং সিস্টেমকে বিকৃত করার অভিযোগ তোলা হয়। ব্রডকাস্টার ‘সুপারস্পোর্ট’-এর বিরুদ্ধেও দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ ওঠে। এদিকে এই ঘটনা নিয়ে ইতিমধ্যেই তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া। রিভিউ সিস্টেম নিয়ে খানিক দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েন নেটিজেনরা। একাংশে দাবি, এই সিদ্ধান্তকে সঠিক। আবার অনেকের মতে বিষয়টি একেবারেই মানা যায় না। যদিও ক্রিকেটার শ্রীবৎস গোস্বামীর মতে, এই ঘটনার জন্য এমন মন্তব্য করা ঠিক হয়নি। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তটা মেনে নিয়েই চলতে হবে।

https://twitter.com/shreevats1/status/1481648590389149696?t=JtWzq2M1N-4gJqFX3NX1sA&s=19

অন্যদিকে, সাংবাদিক বৈঠকে এই প্রসঙ্গে টিম ইন্ডিয়ার বোলিং কোচ পরশ মামব্রে জানান, “মাঠে প্রত্যেকেই নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করে। তাই কখনও এমন পরিস্থিতি তৈরি হলে অনেকেই অনেক কিছু বলে ফেলে। খেলায় এমন প্রায়ই হয়েই থাকে। তবে সেসব পিছনে ফেলে রেখেই এগিয়ে যেতে হয়।” গোটা বিষয়টিকে অবশ্য তিনি ম্যাচ রেফারির উপরই ছেড়ে দেন।