শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩

আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বহুতল! মৃত অন্তত ৩, ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ে অনেকেই

আত্রেয়ী সেন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৪, ২০২৩, ১০:০৮ পিএম | আপডেট: জানুয়ারি ২৪, ২০২৩, ১০:০৮ পিএম

আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বহুতল! মৃত অন্তত ৩, ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ে অনেকেই
আচমকাই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বহুতল! মৃত অন্তত ৩, ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ে অনেকেই

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বুধবার সন্ধ্যায় ভয়ানক দুর্ঘটনা ঘটল যোগী রাজ্যে। উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউয়ে হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল একটি বহুতল। এই ঘটনার জেরে এখনও পর্যন্ত ৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি ধ্বংসস্তূপের নীচে এখনও চাপা পড়ে অনেকেই।

এই ঘটনাটি ঘটেছে হজরতগঞ্জ এলাকার ওয়াজির হাসানগঞ্জ রোডে। ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে পুলিশ ও দমকল বিভাগের দল। জানা গিয়েছে, যে বহুতল ভেঙে পড়েছে তার নাম আলয় অ্যাপার্টমেন্ট। স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকেরই দাবি, ওই আবাসিক ভবনে কমপক্ষে ৫০ টি পরিবার বাস করত। কাজেই ৮০ থেকে ৯০ জন ওই ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়েছেন বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে। ‘

এদিকে, ঠিক কী কারণে ওই বহুতল ভেঙে পড়ল, তা এখনও জানা যায়নি। কেউ কেউ বলছেন একটি রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডার বিস্ফোরণের পরই ভবনটি ধসে পড়েছে। আবার, কেউ কেউ সন্দেহ করছেন যে, ওই ভবনটি ভেঙে পড়ার নেপথ্যে দায়ী ভূমিকম্প। এদিন দুপুর আড়াইটে নাগাদ নেপালে একটি ৫.৮ মাত্রার ভূমিকম্প হয়। যার জেরে কেঁপে উঠছিল লখনউ-সহ উত্তর ভারতের বিস্তীর্ণ এলাকা। তবে,ঞ্জানা গিয়েছে, ভূমিকম্পের প্রায় ৪ ঘণ্টা পর বাড়িটি ধসে পড়ে।

ইতিমধ্যেই ঘটনাস্থলে উদ্ধার ও ত্রাণের কাজ শুরু করেছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী এবং রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর বেশ কয়েকটি দল। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথও এই ঘটনার বিষয়ে খোঁজখবর করেছেন। ত্রাণ ও উদ্ধার কাজে গতি আনতে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন পুলিশ ও প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারা। এর পাশাপাশি আহতদের সমস্ত রকম চিকিৎসায় সাহায্য করার নির্দেশ দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই অনেককেই ধ্বংসস্তূপের নীচ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। বেশিরভাগই গুরুতর আহত। পাশাপাশি ৩ জনকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। আহতদের নিকটবর্তী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বেশ কয়েকটি অ্যাম্বুল্যান্সে করে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন উপমুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ব্রজেশ পাঠকও। তিনি বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে আমরা ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়া মানুষদের উদ্ধারেরই জোর দিচ্ছি। যত বেশি সম্ভব মানুষের প্রাণ বাঁচানোই আমাদের লক্ষ্য।’

অনেকে দাবি করছেন, উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্তা, সপরিবারে ওই ভবনের উপরের তলায় থাকতেন। প্রতিবেশীদের দাবি, গত কয়েকদিন ধরেই ওই বাড়িটিতে মেরামতির কাজ চলছিল। বেসমেন্ট থেকে বিভিন্ন রকম যন্ত্রপাতির আওয়াজ আসছিল। তবে ঠিক কী ধরনের কাজ চলছিল ওই আবাসনে, তা কেউ জানাতে পারেননি।