মুকুল রায়কে হেভিওয়েট মানতে নারাজ কৃষ্ণনগরে তৃণমূল প্রার্থী কৌশানি

মুকুল রায়কে হেভিওয়েট মানতে নারাজ কৃষ্ণনগরে তৃণমূল প্রার্থী কৌশানি
মুকুল রায়কে হেভিওয়েট মানতে নারাজ কৃষ্ণনগরে তৃণমূল প্রার্থী কৌশানি

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়াঃ দু’দলেরই প্রার্থী তালিকা প্রকাশ হয়ে গেছে। তাই এখন আর বসে থাকার সময় নেই। নির্বাচনী প্রচারে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে বিজেপি এবং তৃণমূল উভয়েই। পিছিয়ে নেই বামও। ভোটের আবহে রাজ্য-রাজনীতি সরগরম প্রার্থীদের বক্তব্য-মন্তব্যে।

এই যেমন সদ্য রাজনীতির আঙিনায় পা রাখা অভিনেত্রী কৌশানি। সম্প্রতি তিনি তৃনমূলে যোগ দিয়েছেন। রাজনীতিতে যোগ দিয়েই পেয়ে গেছেন নির্বাচনের লড়ার টিকিট। তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে তিনি কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে লড়াই করবেন।

‘মুকুল রায় কোনোদিন কোনো নির্বাচনে জয়লাভ করেননি, আমরা তাঁকে হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে মনে করিনা’, আজ দলীয় নেতৃত্বকে সঙ্গে নিয়ে তৃণমূলের তরুণ মুখ অভিনেত্রী কৌশানি এমনটাই দাবি করেছেন সাংবাদিক বৈঠকে। এদিন দলীয় নেতৃত্বকে সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকেই তিনি বলেন যে, মুকুল রায়কে তিনি হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে মনেই করছেন না। উল্টে তাঁর দাবি, এমনটা মনে করার কোনও কারণ নেই, যে তিনি ‘লাইটওয়েট’। এভাবেই তিনি আজ আক্রমণ করলেন বিজেপিকে।

তিনি আরও জানান, মুখ্যমন্ত্রী একসঙ্গে ২৯৪ টি আসনের প্রার্থী ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু বিরোধীদের ক্ষেত্রে প্রার্থী সংখ্যা এতই কম যে, তাঁরা সাংসদদেরকে বিধায়কের আসনে দাঁড় করানো হচ্ছে। এদিন মূলত তিনি দাবি করেন যে, বিজেপির হাতে কোন প্রার্থী নেই, তাই দফায় দফায় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করছে বিজেপি।

তাঁর আরও দাবি, বাংলার মানুষ বহিরাগতদের বিতাড়িত করবে এই বাংলা থেকে। পশ্চিমবঙ্গ জুড়ে যে উন্নয়নের জোয়ার চলছে, তার ফলস্বরূপ এই নির্বাচনে মানুষ পুনরায় মমতা ব্যানার্জিকেই নির্বাচিত করবেন এবং তৃতীয় বারের জন্য আবার মুখ্যমন্ত্রী হবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.