মঙ্গলবার, ১৭ মে, ২০২২

‘মাতঙ্গিনী হাজরা অসমের’! লালকেল্লায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের অংশ নিয়ে বিতর্ক! কড়া সমালোচনা তৃণমূলের

০১:৩২ পিএম, আগস্ট ১৫, ২০২১

‘মাতঙ্গিনী হাজরা অসমের’! লালকেল্লায় প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের অংশ নিয়ে বিতর্ক! কড়া সমালোচনা তৃণমূলের

বংনিউজ২৪x৭ ডেস্কঃ ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে বেফাঁস মন্ত্যব্য করে বসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মন্ত্রী। আর তাকে ঘিরেই রাজনৈতিক মহলে শুরু সমালোচনা। প্রধানমন্ত্রীর মন্ত্যব্যের জেরে সোশ্যাল মিডিয়ায় শোরগোল ফেললেন রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক সহ তৃণমূলের অন্যান্য নেতারা। তাতে আবার সাফাই দিলেন বিজেপি নেতা বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এমনকি রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক কুনাল ঘোষ প্রধানমন্ত্রী এবং নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে ক্ষমা চাওয়ার কথা বলে।

আজ সকাল থেকেই লালকেল্লায় শুরু হয়েছে ৭৫তম স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান। সেখানেই ভাষণ দিতে শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। শুরুতেই দেশের বীর যোদ্ধাদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি। তারপর প্রদেশের সাহসী মহিলাদের সঙ্গেই তুলে ধরেন তমলুকের মাতঙ্গিনী হাজরার নাম। সেইসময় বাংলার তমলুকের মাতঙ্গিনী হাজরা না বলে তিনি বলে ফেলেন অসমের বীরাঙ্গনা মাতঙ্গিনী হাজরা। প্রধানমন্ত্রীর এই মন্ত্যব্যের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর তরজা তৃণমূল বিজেপির।

https://twitter.com/KunalGhoshAgain/status/1426777737218252804

রাজ্যের সাধারণ সম্পাদক কুনাল ঘোষ তাঁর টুইটার হ্যান্ডেলে লেখেন “ মাতঙ্গিনী হাজরা অসমের? প্রধানমন্ত্রী কি পাগল হলেন? নিজে জানেন না। আবেগ নেই। অন্যের লিখে দেওয়া ভাষণ পড়ে নাটক করতে গেলে এই হয়। এটা বাংলার প্রতি অপমান। প্রধানমন্ত্রী ক্ষমা চান। ওঁদের পূর্ব মেদিনীপুরের গদ্দারও ক্ষমা চেয়ে বিবৃতি দিন।”আবার তাঁকে সঙ্গ দিয়ে রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানান ঘটনাটি নিন্দনীয়। ঘটনার সাফাই দিয়ে বিজেপি সভাপতি জানান, প্রধানমন্ত্রীর মুখ দিয়ে ভুল করে বেরিয়ে গেছে। এগুলি ছোট খাটো ভুল। যারা মাতঙ্গিনী হাজরাকে নিয়ে এত চিন্তিত তাঁরা ওনার জন্য কি করেছে।