দুর্গার নয় অবতারের পুজো করুন দুর্গাপুজোয়, সৌভাগ্যে সংসার ফুলে ফেঁপে উঠবে

দুর্গার নয় অবতারের পুজো করুন দুর্গাপুজোয়, সৌভাগ্যে সংসার ফুলে ফেঁপে উঠবে
দুর্গার নয় অবতারের পুজো করুন দুর্গাপুজোয়, সৌভাগ্যে সংসার ফুলে ফেঁপে উঠবে

আশ্বিন মাসে দেবী দুর্গার নয়টি রূপ নবরাত্রি হিসেবে ব্রত আরম্ভ হয় শুক্লপক্ষের প্রতিপদ তিথিতে। মনে মনে নিয়ম অনুসারে পুজো করুন যে দিন যার পুজো তার মূর্তি স্মরণ করে। এই নবরাত্রি আরাধনায় অবশ্যই ফল পাবেন পবিত্র হৃদয়ে পুজো করলে। শৈলপুত্রী অর্থাৎ পর্বতের কন্যা হল নবদুর্গার প্রথম রূপ। মনোবল বৃদ্ধি করেন মা শৈলপুত্রী।

ব্রহ্মচারিণী হল দ্বিতীয় রূপ, যিনি স্বয়ং জ্ঞান দান করেন ব্রহ্মাকে, ইনি ব্রহ্মপ্রাপ্তি করান ভক্তকেও। মনোসংযোগ বৃদ্ধি করেন মা ব্রহ্মচারিণী। চন্দ্রঘণ্টা হল তৃতীয় রূপ। দেবরাজ ইন্দ্রের প্রদত্ত ঘন্টা দেবীদুর্গার মহিষাসুর বধের জন্য যার মধ্যে গজরাজ ঐরাবতের মহাশক্তি নিহিত ছিল, চন্দ্রের চেয়েও লাবণ্যবতী ইনি। সাংসারিক সমস্ত কষ্ট থেকে মুক্তি দেন মা চন্দ্রঘণ্টা।

কুষ্মণ্ডা হল চতুর্থ রূপ। উষ্মার অর্থ তাপ। সমগ্র সংসার ভক্ষণ করেন ইনি। সুখ ও সমৃদ্ধি দেন মা কুষ্মণ্ডা। স্কন্দমাতা হল পঞ্চম রূপ। দেব সেনাপতি কার্তিকের মা। গৃহের যে কোনও রকম অশান্তি নাশ করেন  মা স্কন্দমাতা। ষষ্ঠরূপ কাত্যায়নী। বৃন্দাবনে দেবী গোপবালা রূপে পূজিতা। ব্রজের দুর্গার নাম কাত্যায়নী। শত্রু নাশ করেন মা কাত্যায়নী।

সপ্তম রূপ কালরাত্রি। মহাপ্রলয়কালে বিলয় হয় বিশ্বের এই রাত্রিরূপিণী মাতার কোলেই। মা কালরাত্রি অল্প বয়সে কোনও ফাঁড়া থাকলে তা নাশ করেন। অষ্টম রূপ মহাগৌরী। এঁর ধ্যান করা খুব ভাল কারও বাড়িতে বিবাহজনিত কোনও সমস্যায়। নবম রূপ সিদ্ধিদাত্রী। মা সিদ্ধিদাত্রী সর্বসিদ্ধিদাত্রী।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.