‘আপনার নাম নিতে লজ্জা করে’, নাম না করেই দিলীপকে আক্রমন মমতার

Image source: Google

বিশেষ প্রতিবেদনঃ বিরোধিদের ডাকা ধর্মঘটকে সমর্থন করেননি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এবার দিল্লিতে সিএএ ও এনআরসি এর বিরোধিতায় ডাকা বৈঠকেও অংশগ্রহন করলেনা তিনি। সব মিলিয়ে মুখ্যমন্ত্রী যে বিজেপিকে সমর্থন করছেন সেই বার্তাই এখন প্রতিষ্ঠিত করতে তৎপর বিরোধীরা। কিন্তু বিরোধীদের এই দাবিকে আরও একবার মিথ্যা প্রমান করতে সোমবার ধর্মতলায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ধর্না মঞ্চ থেকে বিজেপিকে আক্রমন করলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে এদিন তাঁর নিশানায় ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন নাম না করেই দিলীপ ঘোষের ‘গুলি মন্তব্যের’ জন্য তাঁকে কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি সিএএ নিয়েও এদিন তিনি আক্রমন করতে ছাড়েননি বাম-কংগ্রেস সহ বিজেপিকে।

এদিন ধর্নামঞ্চ থেকে দিলীপ ঘোষকে আক্রমন করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “নাম বলতে লজ্জা করে। আপনি নেতা হয়ে বলছেন গুলি চালাতে। এটাই তো চাইছো। কিছু হলে তোমাদের দায়িত্ব নিতে হবেনা।“ এর পরেই সিএএ ও এনআরসি নিয়ে শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথাও ঘোষনা করেন। তবে এই আন্দোলনে তিনি বাম-কংগ্রেস কাউকেই পাশে চাননা বলেও জানিয়ে দেন।

প্রসঙ্গত, রবিবার রানাঘাটে সিএএ বিরোধীদের একপ্রকার হুঁশিয়ারি দেন দিলীপ ঘোষ। সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়েই সীমা অতিক্রম করে ফেলেন তিনি। এদিন সভামঞ্চ থেকে তিনি বলেন, যারা সরকারি সম্পত্তি ধ্বংশ করছে তাঁদের সকলকে কর্নাটক, অসম ও উত্তরপ্রদেশের মতো গুলি করে মারা হবে। তাঁর এই বক্তব্যে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়ে সোমবার ধর্নামঞ্চ থেকে দিলীপ ঘোষকে নিশানা করেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে বাম-কংগ্রেস ও গেরুয়া শিবিরকে আক্রমন করে মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, “বিজেপির সঙ্গে বাম-কংগ্রেসের কোন পার্থক্যই নেই। আমরা একাই আন্দোলন করব, একাই পথে নামব।“

আরও পড়ুনঃ  ব্যবসার পথ আরও সহজ করতে আসছে ১৩ হাজার কোটি টাকার লগ্নিঃ মমতা

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.