বৃহস্পতিবার, ১৯ মে, ২০২২

পরিবারের সব মহিলারাই কী পাবেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের অনুদান? কী জানালেন মুখ্যমন্ত্রী?

০৮:২৫ পিএম, আগস্ট ১৮, ২০২১

পরিবারের সব মহিলারাই কী পাবেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের অনুদান? কী জানালেন মুখ্যমন্ত্রী?

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পে পরিবারের সব মহিলারই কি অনুদান পাবেন? পেলে তার শর্তই বা কী? আজ নবান্নে প্রশাসনিক বৈঠকের পর, সেসবই স্পষ্ট করে বুঝিয়ে বললেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন জানালেন, স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে বাড়ির অভিভাবকের নামে থাকলেও, পরিবারের সব মহিলারাই অনুদান পাবেন। এর পাশাপাশি এদিন তিনি ফর্ম তুলতে তাড়াহুড়ো না করার পরামর্শও দেন।

উল্লেখ্য, ‘দুয়ারে সরকার’ শুরু হয়েছে ১৬ আগস্ট। তা চলবে আরও এক মাস। এর জন্য ২২ হাজারের বেশি ক্যাম্প করার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য সরকার। ২ দিন হয়েছে ২ হাজার ৬৫০ টা ক্যাম্প। যা শুনে মুখ্যমন্ত্রী নিজেই বলেন, ‘আমি নিজেই অবাক হচ্ছি। ৩ দিন শেষ হওয়ার আগেই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পে আবেদন পেয়েছি ৪৬ লক্ষ। এটা চলবে ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। তাড়াহুড়ো করার কোনও কারণ নেই। একসঙ্গে ভিড় করবেন না। যাঁরা পাওয়ার যোগ্য তাঁরা সবাই পাবেন।’

অন্যদিকে, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার’ প্রকল্পের ফর্ম সংগ্রহের জন্য যেভাবে বিশৃঙ্খলা তৈরি হচ্ছে, তা থামাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘একমাস সময় আছে। তাড়াহুড়ো করার দরকার নেই। দরকার হলে, ৩-৪ দিন বাড়িয়ে দেব। বেশি ভিড় করবেন না। সরকারি চাকরি করেন বা পেনশন পান, তাঁরা ছাড়া সবাই পাবেন। যাঁরা স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করেছেন তাঁরা কার্ড দেখালে ফর্ম পেয়ে যাবেন।’

অনেকের মনেই এই প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে যে, স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে নাম না থাকলেও মুখ্যমন্ত্রীর ‘লক্ষ্মীর ভান্ডার’ প্রকল্পের সুবিধা পাওয়া যাবে কিনা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে, ‘স্বাস্থ্যসাথীতে নিয়ম করেছি বাড়ির বয়স্ক মহিলার নামে হবে কার্ড। কিন্তু যে বাড়িতে ৩ জন মহিলা আছেন, যাঁদের বয়স ২৫ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে অথচ তাঁদের নামে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নেই। অভিভাবকের নামে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকলেও, সেই বাড়ির বউরা বা মেয়েরা এই সুবিধা পাবেন।’