‘গ্যাস-পেট্রল-ডিজেল থেকে কেন্দ্র সরকার ৪ লক্ষ কোটি টাকা তুলেছে’, বিস্ফোরক দাবি মমতার

‘গ্যাস-পেট্রল-ডিজেল থেকে কেন্দ্র সরকার ৪ লক্ষ কোটি টাকা তুলেছে’, বিস্ফোরক দাবি মমতার
‘গ্যাস-পেট্রল-ডিজেল থেকে কেন্দ্র সরকার ৪ লক্ষ কোটি টাকা তুলেছে’, বিস্ফোরক দাবি মমতার

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে ফের কেন্দ্রের মোদী সরকারের সমালোচনায় সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার বিশ্ববাংলা শারদ সম্মান পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমাদের রাজ্যে এখন একটাই সমস্যা। পেট্রল-ডিজেলের দাম ক্রমশ বাড়ছে। এই গ্যাস, পেট্রল, ডিজেল থেকে কেন্দ্রীয় সরকার চার লাখ কোটি টাকা তুলেছে। আজ ডিজেল না থাকলে জিনিসপত্রের দাম তো বাড়বেই। কৃষকেরা চাষ করবে কোথা থেকে? ডিজেল তো লাগে।’

এদিন কেন্দ্রের মোদী সরকারকে আক্রমণ করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘নিজেদের রাজ্যে হাজার হাজার কোটি টাকা দিচ্ছে। আমাদের টিকাই দেয় না। টাকা দেবে! আমাদের টাকা নেই। তবু রাজ্য সরকার প্রতি লিটার ডিজেলে এক টাকা করে ছাড় দিচ্ছে।’

অন্যদিকে, এদিন যুব সম্প্রদায়ের উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, ‘এখানেও অনেক ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করা হচ্ছে। সিলিকন ভ্যালির মতো করা হচ্ছে। রেপ্লিকা নয়, বিরাট করে ভাবা হচ্ছে। হিডকো ১০০ একর জমি দিয়েছে। সেখানে আই টি পার্ক তৈরি হচ্ছে। ভর্তি হয়ে গিয়েছে। আরও ১০০ একর জায়গা আমরা দিয়েছি। অনেক ইন্ডাস্ট্রি বাংলায় আসছে। MSME-তে বাংলা এক নম্বরে। কিন্তু, এখন মানুষের টাকাপয়সা রুদ্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। ব্যাঙ্কিং সেন্টারের লেনদেন কম হচ্ছে। কোল থেকে সেল, রেল থেকে ভেল বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। বহু মানুষ কাজ হারাচ্ছেন। এভাবে চলতে থাকলে তো বেকারত্ব বাড়বেই।’

বাংলার বিভিন্ন প্রকল্পের কথা তুলে ধরে মুখ্যমন্ত্রীর বলেন, ‘সামাজিক সংস্কারে সবার আগে বাংলা। আমাদের যত প্রকল্প আছে, সারা পৃথিবীর আর কোথাও দেখাতে পারবেন? ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রাজা রামমোহন রায়, রবীন্দ্র-নজরুল চিন্তা করেছিলেন, আমাদের সরকার সেই চিন্তাকে বাস্তবায়িত করে দেখিয়েছে।’

এছাড়াও করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে রাজ্যবাসীকে সতর্ক থাকার বার্তাও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, ‘এই সময়টায় জ্বরজারি হয়। ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। কিন্তু, মাস্ক পরুন। সতর্ক থাকুন। এখন ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গি থেকেও সাবধানে থাকবেন। খুব বেশি ম্যালেরিয়া বা ডেঙ্গি হচ্ছে, তা নয়। তবে আমরা টেস্টের উপর জোর দিয়েছি। যতদূর জানি এখনও পর্যন্ত দু’জনের ম্যালেরিয়ায় মৃত্যু হয়েছে। সম্ভবত পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গিতে।’