ফোনে আড়িপাতার জন্য সিআইডি তদন্ত হবেঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! কমিশনে তৃণমূল কংগ্রেস

ফোনে আড়িপাতার জন্য সিআইডি তদন্ত হবেঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! কমিশনে তৃণমূল কংগ্রেস
ফোনে আড়িপাতার জন্য সিআইডি তদন্ত হবেঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! কমিশনে তৃণমূল কংগ্রেস

বংনিউজ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তাঁর ফোনে আড়িপাতা হচ্ছে। এই অভিযোগ খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। শীতলকুচি কাণ্ডের পর, গতকাল একটি অডিও ক্লিপ প্রকাশ করেন বিজেপির আইটি সেলের প্রধান তথা বিজেপি নেতা অমিত মালব্য। এই অডিও ক্লিপ প্রকাশ করে তিনি দাবি করেন যে, শীতলকুচিতে গুলিতে ৪ জনের মৃত্যুর পর তৃণমূল প্রার্থী পার্থপ্রতিম রায়কে ফোন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ওই অডিও ক্লিপে মমতার কণ্ঠস্বরের মহিলাকে বলতে শোনা গিয়েছিল, ডেডবডি পরিবারকে দেওয়া হবে না। সেগুলি নিয়ে মিছিল হবে। আর এই অডিও ক্লিপ প্রকাশিত হওয়ার পর থেকেই তা নিয়ে উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি। বিজেপি নেতাদের অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘লাশের রাজনীতি’ করেন। আর এটা কোনও নতুন ঘটনা নয়। যদিও এই অডিও ক্লিপের সত্যতা যাচাই করেনি বংনিউজ২৪x৭।

আর এই অডিও ক্লিপ প্রকাশ্যে আসার সঙ্গে সঙ্গে এর বিরুদ্ধে সরাসরি সিআইডি তদন্ত শুরু করার কথা জানিয়ে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উল্লেখ্য, বাংলায় ভোটের আবহে একের পর এক শাসকদলকে কাঠগড়ায় তুলে অডিও প্রকাশ করছে বিজেপি। তবে এই অডিও ক্লিপের বিষয়টিকে মোটেও হালকাভাবে নিচ্ছে না শাসকদল তৃণমূল। ইতিমধ্যেই আইনি প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য কমিশনেক দ্বারস্থ হয়েছে দল।

শীতলকুচি কাণ্ডে অডিও ক্লিপ প্রসঙ্গে কমিশনে তৃণমূল

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পূর্ব বর্ধমানে তিন-তিনটি সভা করেন। গলসির সভা থেকে তিনি বলেন, ‘আমি কার সঙ্গে কথা বলছি তা ট্যাপ করা হচ্ছে। এটা একটা বড় দুর্নীতি। কে আমার ফোনে আড়ি পাতছে আমি জানতে চাই। আমি সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দেবো। সবার ফোনে আড়ি পাতছে কেন্দ্রীয় সরকার। সরকার গড়ার পর আমি তদন্তের নির্দেশ দেবো।’

অন্যদিকে, এদিন করোনাবিধি নিয়েও কমিশনকে আক্রমণ করেন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মূল অভিযোগ দফা কমিয়ে না এনে, পরিস্থিতি আরও জটিল করে তুলেছে কমিশন। তিনি বলেন, ‘আমি বললাম নির্বাচন একসঙ্গে করে দাও, তা করল না উল্টে সময় কমিয়ে দিল। কেন সময় কমিয়ে দেওয়া হল? তিন দফার নির্বাচন একসঙ্গে হতেই পারত। কিন্তু কমিশন সেটা করল না।’ এছাড়াও করোনা টিকা নিয়েও কেন্দ্রের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন যে, বাংলায় দশ হাজার বহিরাগত গুণ্ডা ঢুকে বসে আছে। এদের জন্যেই রাজ্যে এভাবে করোনা ছড়াচ্ছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এদিন ভোট পঞ্চমীর আবহে, আসানসোলের নির্বাচনী সভায় এ প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন আসানসোলের সভায় তৃণমূল নেত্রীকে আক্রমণ করে বলেন যে, ‘দিদির নির্মমতা ও অসংবেদনশীলতা আরও একবার দেখলাম। কোচবিহারে যা হয়েছে, সে নিয়ে কাল একটা অডিও আপনারা শুনেছেন। ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় রাজনীতি করছেন দিদি। ওই অডিওতে কোচবিহারের তৃণমূল নেতাকে বলা হচ্ছে, নিহতদের মৃতদেহ নিয়ে মিছিল করো। দিদি ভোটব্যাঙ্কের জন্য আর কতদূর যাবেন! কোচবিহারে মৃত্যুর ঘটনায় রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করেছেন দিদি। লাশ নিয়ে রাজনীতি দিদির পুরনো অভ্যাস।’

 

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.