প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বাড়ির সামনে হঠাৎই থামলেন মমতা! স্মরণ করলেন এককালীন সতীর্থ ‘ছোড়দা’কে

প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বাড়ির সামনে হঠাৎই থামলেন মমতা! স্মরণ করলেন এককালীন সতীর্থ 'ছোড়দা'কে
প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বাড়ির সামনে হঠাৎই থামলেন মমতা! স্মরণ করলেন এককালীন সতীর্থ 'ছোড়দা'কে/Soumen Mitra Image Source Facebook Official Page

একসময় অভিমানের বশে তাঁর দল ছেড়ে নিজের স্বতন্ত্র দল গড়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে এরপরে তাঁরা একে অপরের রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী থাকলেও একে ওপরের প্রতি সম্মান রেখেছেন। আর তাই নববর্ষের দিনে মিছিল করে যাওয়ার সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় থমকে দাঁড়ালেন ‘ছোড়দা’ তথা প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রর বাড়ির সামনে।

নববর্ষের দিনে উত্তর কলকাতা থেকে মধ্য কলকাতা মিছিল করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বেলেঘাটার আলো-ছায়া সিনেমা হল থেকে বউবাজার পর্যন্ত মিছিল করতে করতে যাওয়ার সময় রাস্তাতেই কংগ্রেস নেতা সোমেন মিত্রের বাড়ির সামনেই আচমকা থেমে যান তৃণমূল নেত্রী। বাড়ির সামনে দাঁড়িয়েই সোমেন মিত্রকে স্মরণ করে আবার এগিয়ে যান তৃণমূল সুপ্রিমো।

রাজ্য রাজনীতিতে সোমেন বাবু আর নেই। গত বছরেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হয়েছেন। কিন্তু নববর্ষের দিনে ফের প্রাসঙ্গিক করে তুললেন ‘ছোড়দা’কে। যুব কংগ্রেসের সভাপতি থাকাকালীন সোমেন মিত্রের সঙ্গে মনোমালিন্যের জেরে দল ছাড়েন মমতা। তৈরি করেন তৃণমূল কংগ্রেস।

এরপর কালের নিয়মে বিরোধী দল হওয়ায় একে অপরের দোষ তুলে ধরেছেন জন সমক্ষে। বিরোধিতাও করেছেন প্রকাশ্যে। তবে কখনোই একে অপরকে অসম্মান করেননি। এদিন মিছিলের মাঝে প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির বাড়ির সামনে হুইল চেয়ার থামিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্মরণ যেন সোমেন মিত্রর প্রতি তাঁর সেই পুরনো আবেগ, শ্রদ্ধারই বহিঃপ্রকাশ ছিল।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.