কাজ থেকে রেহাই পেতে কিডন্যাপের ভুয়ো নাটক জনৈক যুবকের! জানাজানি হতেই ভাইরাল নেটদুনিয়ায়

কাজ থেকে রেহাই পেতে কিডন্যাপের ভুয়ো নাটক জনৈক যুবকের! জানাজানি হতেই ভাইরাল নেটদুনিয়ায় / Image Source- Tweeted By @Wikitrusted1
কাজ থেকে রেহাই পেতে কিডন্যাপের ভুয়ো নাটক জনৈক যুবকের! জানাজানি হতেই ভাইরাল নেটদুনিয়ায় / Image Source- Tweeted By @Wikitrusted1

কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়লে বেশিরভাগ মানুষই ছুটির জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন। সেসময় ছুটি পাওয়ার উদ্দেশ্যে নানা অজুহাতও খাড়া করেন তাঁরা। তবে কাজের হাত থেকে সাময়িক রেহাই পেতে অ্যারিজোনার এক যুবক যা করলেন, তা শুনলে চোখ কপালে উঠতে বাধ্য! নিজেই নিজেকে আটক করে, কিডন্যাপিংয়ের ভুয়ো নাটক করলেন তিনি। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হল সেই ছবিই!

পুলিশ সূত্রে খবর, গত ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯ বছর বয়সী ব্র্যান্ডন সোলসকে খুঁজে পায় অ্যারিজোনার কুলিজ পুলিশ। সেসময় হাত পিছনে হাত বাঁধা অবস্থায় ছিল। মুখের মধ্যে গোঁজা ছিল একটি ব্যান্ডানা। উদ্ধার পাওয়ার পর সোলস পুলিশকে জানান, দু’জন মুখোশধারী লোক তাঁকে অপহরণ করেছিল। তার মাথায় আঘাত করা হয়েছিল। তারপর তাকে অচেতন অবস্থায় ছুঁড়ে ফেলে পালায় তারা। সোলস এও জানান, ফেলে দেওয়ার আগে লোকগুলি গাড়ি করে সেই স্থানে নিয়ে যায় তাঁকে।

দেখুন সেই ছবি-

এরপরই জিজ্ঞাসাবাদের সময় তাঁর কথায় প্রচুর অসঙ্গতি লক্ষ্য করে পুলিশ। সোলসকে আরও কড়াভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে ভেঙে পড়েন তিনি। নিজেই স্বীকার করে নেন, গোটা ঘটনাটিই ভুয়ো। কাজের হাত থেকে রেহাই পাওয়ার জন্যই এই পুরো নাটকটি সাজান তিনি। তিনি প্রথমে মুখে একটি ব্যান্ডনা গুঁজে নেন। এরপর কোমড়ের বেল্টটি খুলে সেটির সঙ্গে নিজের হাত বেঁধে ফেলেন। সব শেষে রাস্তার পাশে শুয়ে পড়েন এবং লোকজন আসার অপেক্ষা করতে থাকেন।

অবশ্য মিথ্যাচারণ করে পুলিশকে বিভ্রান্তিতে ফেলার জন্য ইতিমধ্যেই পুলিশ সোলসকে গ্রেপ্তার করেছে। এমনকি টায়ার কারখানার কাজটি থেকেও বহিস্কার করা হয়েছে তাঁকে। যদিও গোটা ঘটনায় ব্র‍্যান্ডনের বক্তব্য, তিনি খুবই লজ্জিত।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.