ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম

ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম
ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম

ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রোচ্চারণে সঙ্গে বট ও অশ্বত্থের বিবাহ! হ্যাঁ, এমনই এক অভিনব বিয়ের সাক্ষী থাকল আলিপুরদুয়ার কোচবিহার জেলার সীমান্ত সংলগ্ন উত্তর রামপুর গ্রামের বাসিন্দারা। এলাকার দুই প্রাচীন গাছকে বর-কনে সাজিয়ে রীতিমতো ব্যান্ডপার্টি বাজিয়ে এই বিয়ে দেওয়া হয়৷ স্থানীয় এক ব্যক্তিকে বরের বাবা ও অন্য এক ব্যক্তিকে কনের বাবার দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর বিবাহের সমস্ত নিয়মবিধি মেনেই অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম
ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম

এই অনুষ্ঠানের মূল উদ্যোক্তা ছিলেন গ্রামেরই বাসিন্দা রাধেশ্যাম মণ্ডল। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর বাবা উত্তর রামপুর ক্ষুদিরাম শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের মাঠের কোনায় এই বট ও অশ্বত্থ গাছের চারা দুটি পুঁতেছিলেন। সেইসময়ই তিনি মানত করেছিলেন, গাছ দুটি বড় হলে তাদের রীতি রেওয়াজ মেনে বিয়েদেবেন। কিন্তু বাবা জীবিত থাকাকালীন আর্থিক ও অন্যান্য সমস্যার কারণে এই বিবাহ সম্পন্ন করা হয়নি। কয়েক বছর আগে বাবা মারা যান। কিন্তু তাঁর ইচ্ছে পূরণ করতেই সমস্ত রীতি মেনে ধুমধাম করে বট-অশ্বত্থের বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করেন রাধেশ্যাম বাবু।

ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম
ডিজে, সানাই বাজিয়ে মন্ত্রপাঠ করে বট ও অশ্বত্থ গাছের বিয়ে! অভিনব দৃশ্যের সাক্ষী গোটা গ্রাম

অনুষ্ঠানে ঠিক কী ছিল না! সকালে জলভরা অনুষ্ঠান থেকে গায়ে হলুদ থেকে রাতে বিয়ের সানাই, কোনও রেওয়াজই বাদ যায়নি। হাজির হয়েছিল পুরোহিত মশাইও। মন্ত্রোপাঠ করে বট – অশ্বত্থের বিয়ে দেন তিনি। এই গাছের বিয়েতে সারা গ্রামের লোক নিমন্ত্রিত ছিলেন। ভূরিভোজের আয়োজনও করা হয়েছিল। বলাই বাহুল্য, পেট পুরে খাওয়ার পাশাপাশি এক অভিনব ঘটনার সাক্ষী থাকলেন গ্রামবাসীরা।