‘বিজেপি সরকার গড়লেই, ৩ বছরের বকেয়া টাকা পাবেন কৃষকরা!’ কাঁথির জনসভায় বললেন মোদী

‘বিজেপি সরকার গড়লেই, ৩ বছরের বকেয়া টাকা পাবেন কৃষকরা!’ কাঁথির জনসভায় বললেন মোদী
‘বিজেপি সরকার গড়লেই, ৩ বছরের বকেয়া টাকা পাবেন কৃষকরা!’ কাঁথির জনসভায় বললেন মোদী / Screengrab from Facebook Video Posted By @narendramodi

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ তিন দশক, বেশ অনেকটা সময়। এই তিন দশক পরে কাঁথিতে পা পড়ল কোনও প্রধানমন্ত্রীর। আজ এখানেই জনসভা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এর আগে ১৯৮৭ সালে কাঁথিতে এসেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী। তবে, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নয়, অধিকারী গড় কাঁথিতে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে প্রচারে এলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আজ সভায় উপস্থিত ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী, শিশির অধিকারী, সৌম্যেন্দু অধিকারী। ছিলেন না শুধু দিব্যেন্দু অধিকারী। এদিনের সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘বহিরাগত’ কটাক্ষ প্রসঙ্গে সরব হন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন যে, ‘এ পবিত্র বঙ্গভূমিতে কেউ বহিরাগত নয়।’ প্রধানমন্ত্রী সাফ কথা, ‘যে মাটিতে রাজা রামমোহন রায়, কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ, মাতঙ্গিনী হাজরা, নেতাজি, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় জন্মেছেন, সেই মাটিতে কেউ বহিরাগত হতে পারে না।’

এর পাশাপাশি তিনি ইঙ্গিত দিলেন যে, বাংলার একুশের নির্বাচনে বিজেপি জিতলে, বাংলার ভূমিপুত্রই হবে মুখ্যমন্ত্রী। তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করে বলেন যে, খেলা নয়, সেবা হবে। এদিন নন্দীগ্রামের প্রসঙ্গ টেনে বলেন যে, নন্দীগ্রাম থেকেই সব পেয়েছেন মমতা, আর আজ বদনাম করছেন সেখানকার মানুষের।’ তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার লড়াইয়ে বাংলার অবদান অনেক। সেই অবদানের স্বীকৃতি দেওয়া বিজেপির দায়িত্ব। ২ মে দিদি যাচ্ছে, আসল পরিবর্তন আসছে।’

তিনি এদিনের জনসভায় ফের একবার আমফানের বিষয়ে বলেন, ‘দিদি এখন মেদিনীপুরে এসে অজুহাত দিচ্ছেন। আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের জবাব দিতে পারেননি দিদি। ভাইপো উইন্ডোয় কাটমানির টাকা ঢুকে গেছে। বাংলা জানতে চায়, গরিবদের চাল কে লুঠ করেছে। আগে দেখা পাওয়া যেত না, এখন সরকার দুয়ারে দুয়ারে। আপনার খেলা ধরা পড়ে গেছে।’

নরেন্দ্র মোদী বলেন, আজ ২৫ বছর বয়সী যুবক, বা যে এবার প্রথম তাঁর ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে চলেছেন, সকলের জন্যই এই ভোট অতি গুরুত্বপূর্ণ। আগামী ২৫ বছরে তাঁকে নতুন সমাজ গড়তে হবে। আর সেই কারণেই আসল পরিবর্তন দরকার। বাংলার প্রত্যেক ঘরে এখন একটাই কথা, ২ মে দিদি যাচ্ছে। তিনি বলেন, ‘দিদি আপনার খেলা ধরা পড়ে গেছে। ২ মে মমতাকে দরজা দেখাবে বাংলার মানুষ। বাংলার মানুষ আপনার কুশাসনের জবাব দিতে তৈরি। মা-বোনেরাও তৃণমূলকে সাজা দিতে তৈরি।’

আজ কাঁথির জনসভায় ভাষণ রাখতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে, ‘যেদিকেই তাকাচ্ছি ভিড় আর ভিড়, এই ছবি দেখুন দিদি। এই ছবিই বলছে তৃণমূলের খেলা শেষ, বিকাশ শুরু। বাংলার বিকাশ বিজেপির সঙ্কল্প। বাংলা চায় শিক্ষা, শিল্প, কর্মসংস্থান, নারী সুরক্ষা, কৃষক সম্মান। তাই বাংলায় দরকার বিজেপি সরকার।’

তিনি আশ্বাসের সুরে বলেন যে, ‘বিজেপি সব স্কিমকে স্ক্যাম থেকে মুক্ত করবে। কাটমানি নয়, বিজেপি সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দেবে। করোনাকালে মহিলাদের জন্য কোটি কোটি টাকা দিয়েছে কেন্দ্র। মহিলাদের জন্য ঘরে ঘরে জল পৌঁছে দিয়েছে। তৃণমূল সরকার এখানে কিছুই করতে দেয়নি।’

তাঁর আরও দাবি, ‘পিএম কিষাণ প্রকল্পের টাকা আসতে দেননি দিদি। বাংলার কৃষকদের সঙ্গে শত্রুতা করেছেন দিদি। বিজেপি সরকার গড়লেই, ৩ বছরের বকেয়া টাকা পাবেন কৃষকরা। সিন্ডিকেটরাজ মেদিনীপুরকে নষ্ট করে দিয়েছে।’ পাশাপাশি তিনি এও বলেন যে, ‘পাটচাষি হোক বা কাজু চাষি সবার ভালোর জন্য আমরা কাজ করতে চাই। পাটের ব্যবহার ক্রমে বাড়ছে। বাংলার চাষি দিদির নির্মমতা ভুলবে না।’

অধিকারী গড় কাঁথির জনসভায় এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দাবি করেন, ‘বাংলায় ডবল ইঞ্জিন সরকার এলে মেদিনীপুরের প্রতিটি পরিবারের লাভ। বাংলার বিকাশের জন্য আমরা জান দেবো। বাংলা চায় শিক্ষা, শিল্প, কর্মসংস্থান। বাংলা চায় কৃষক সম্মান। বাংলা চায় বিজেপি সরকার।’

এর পাশাপাশি তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, বাংলায় বিজেপি সরকার এলে কোনও তোলাবাজি হবে না। গুন্ডারাজ বন্ধ হবে।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.