আজ ছুটি মিললেও আগামীকাল ফের হাসপাতালে আসতে হবে মুকুল রায়কে

আজ ছুটি মিললেও আগামীকাল ফের হাসপাতালে আসতে হবে মুকুল রায়কে
আজ ছুটি মিললেও আগামীকাল ফের হাসপাতালে আসতে হবে মুকুল রায়কে

বৃহস্পতিবার গুরুতর অসুস্থ হয়ে আশঙ্কাজনকভাবে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হন মুকুল রায়। তবে এর কয়েক ঘণ্টা পরেই ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে।সন্ধ্যে ৬ টা নাগাদ বাড়ি ফিরে যান মুকুল রায়। তবে আগামীকাল শুক্রবার ফের আসতে হবে তাঁকে। যদিও এখন খানিকটা স্থিতিশীল রয়েছন কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক।

এদিন সকালে হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি এর পরেই তাকে নিয়ে আসা হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানে উডবার্ন ব্লকে ১০৩ কেবিনে ভর্তি হন তিনি। চিকিৎসক গৌতম গঙ্গোপাধ্যায়ের তত্ত্বাবধানে ভর্তি করা হয় তাঁকে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, দীর্ঘদিন থেকে হাইসুগার রয়েছে কৃষ্ণনগরের বিধায়কের। শরীরে সোডিয়াম-পটাশিয়ামও ওঠানামা করছে। যার জেরে তাঁর নানা শারীরিক সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। সোডিয়াম পটাশিয়াম কমে যাচ্ছে বেশ কিছু দিন ধরেই। সেই কারণেই ভর্তির পরামর্শ চিকিৎসকদের।বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের জানিয়েছেন, মানসিক অবসাদেও ভুগছেন কৃষ্ণনগর উত্তরের বিধায়ক।

মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু রায় জানান, তার বাবার বারংবার করে সোডিয়াম পটাশিয়াম লেবেল ওঠানামা করছে। যে কারণে জন্য তার বেশ কিছু শারীরিক পরীক্ষা নিরীক্ষার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সেই কারণের জন্যই আজকে এসএসকেএম হাসপাতালে উডবার্ন ওয়ার্ডের ১০৩ নম্বর কেবিনে রেখে শারীরিক পরীক্ষা করা হয়। তার শারীরিক পরীক্ষার জন্য উপস্থিত ছিলেন চিকিৎসক গৌতম গঙ্গোপাধ্যায় সহ ৭ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে কথা বলার পর মুকুল রায় জানান তিনি রাতে বাড়ি ফিরে যেতে চান। আপাতত শারীরিক অবস্থার স্থিতিশীলতা লক্ষ্য করে রাতে বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুমতি দেন। তবে আগামীকাল শুক্রবার এবং শনিবার তাকে পুনরায় শারীরিক পরীক্ষার জন্য এসএসকেএম এ আসতে হবে। মুকুল রায় কে দেখতে হাসপাতালে আসেন রাজ্য মন্ত্রিসভার সদস্য ফিরহাদ হাকিম।

প্রসঙ্গত বেশ কিছুদিন ধরেই মুকুল রায় অসংলগ্ন কথাবার্তা বলছিলেন। এমনকি তাদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু মন্তব্য করেন। পাশাপাশি সম্প্রতি তার স্ত্রী বিয়োগের পর মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত রয়েছেন কৃষ্ণনগরের বিধায়ক মুকুল রায়।

প্রসঙ্গত, গতকালই রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মুকুল রায়ের অসুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। ভয়ঙ্কর অভিযোগ করে বিরোধী দলনেতা বলেন, “বিধায়ক পদ বাঁচাতে অসুস্থ সাজিয়ে বাড়িতে বসিয়ে রাখা হচ্ছে মুকুল রায়কে।”

মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই দলত্যাগ আইন কার্যকরের দাবি তুলেছে বিজেপি। নথি তুলে ধরে অভিযোগ জানানো হয়েছে বিধানসভার স্পিকারের কাছে। চলছে সেই মামলার শুনানি। এই ইস্যুটি দ্রুত নিষ্পত্তির দাবিতে আইনি পথেরও দ্বারস্থ হয়েছে গেরুয়া বিধায়করা। স্পিকারের কাছে তিনবার শুনানি হলেও একবারও অংশ নেননি বিজেপি বিধায়ক মুকুল রায়। তাঁকে অসুস্থ বলে জানিয়েছেন স্পিকার।