প্রার্থী তালিকা নিয়ে ফের বিড়ম্বনায় বিজেপি! ‘বিজেপির সঙ্গে নেই, প্রার্থীও হচ্ছি না’, জানালেন শিখা মিত্র

প্রার্থী তালিকা নিয়ে ফের বিড়ম্বনায় বিজেপি! 'বিজেপির সঙ্গে নেই, প্রার্থীও হচ্ছি না', জানালেন শিখা মিত্র
প্রার্থী তালিকা নিয়ে ফের বিড়ম্বনায় বিজেপি! 'বিজেপির সঙ্গে নেই, প্রার্থীও হচ্ছি না', জানালেন শিখা মিত্র

বংনিউজ ২৪x৭ ডিজিটাল ডেস্কঃ বিজেপি শিবিরে বড় ধাক্কা। ফের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর, অস্বস্তিতে রাজ্য বিজেপি। বাংলায় আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাকি আসনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে বিজেপি। আর এই প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরই বেশ কিছু জায়গায় ফের দলীয় কর্মীদের বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। অন্যদিকে, চৌরঙ্গী কেন্দ্রে যাঁর নাম ঘোষণা করা হয়েছে, সেই শিখা মিত্র, প্রয়াত কংগ্রেস নেতা সোমেন মিত্রের স্ত্রী জানিয়ে দিলেন, তিনি বিজেপি-তে যোগই দেননি৷ ফলে এই বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির প্রার্থী হওয়ার প্রশ্নই ওঠে না৷

উল্লেখ্য, তাঁর নাম প্রার্থী তালিকায় দেখে অবাক হয়েছেন অনেকেই৷ যদিও চৌরঙ্গী কেন্দ্রেরই প্রাক্তন বিধায়ক শিখা মিত্র জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে যে খবর ছড়িয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যে। এ প্রসঙ্গে তাঁর সঙ্গে কোনও কথাই হয়নি বিজেপির। শুধু তাই নয়, তিনি কখনই বিজেপিতে যাবেন না। এদিকে শিখা মিত্রের নাম প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা হওয়ার পরই, তাঁর পুত্র রোহন মিত্রও একই কথা জানিয়ে দিলেন, তাঁর মা বিজেপির প্রার্থী হয়ে ভোটে দাঁড়াচ্ছেন না। এমনকী বিজেপিতে এখনও যোগও দেননি তিনি। তিনি আরও জানিয়েছেন যে, সোমেন মিত্রকে ছোট করে কিছু করবেন না। তিনি বলেন যে, ‘সোমেন মিত্র মৃত্যুকালে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি ছিলেন। বাবাকে ছোট করে কিছু করব না। আমাদের পরিবার সোমেন মিত্রর পরিবার।’

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেন। সেই প্রার্থী তালিকায় চৌরঙ্গী থেকে প্রার্থী করা হয়েছে প্রাক্তন বিধায়ক শিখা মিত্র চৌধুরীকে। এই ঘোষণার পরই বিবৃতি দেন শিখা মিত্র এবং শিখা-সোমেন পুত্র রোহন।

উল্লেখ্য, এর আগে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী প্রয়াত প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন এবং শিখা মিত্রকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। তাঁদের মধ্যে নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া নিয়েও কথা হয় বলে, সূত্রের খবর। তবে সেসময় শিখা মিত্র এ বিষয়ে কোনও কথা দেননি বলেই তাঁর দাবি। তবে, তিনি ইচ্ছুক নন বলেও জানিয়েছিলেন সেসময়ও। এরপর রোহন মিত্র দলবদলের সম্ভবনা খারিজ করে জানিয়ে দেন যে, তাঁরা কংগ্রেসেই আছেন। তারপরেও এদিন বিজেপির প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হল শিখা মিত্রের নাম।

শিখা মিত্র ছাড়াও আরও এক প্রার্থীকে নিয়ে অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি। তিনি কাশীপুর-বেলগাছিয়া আসনে বিজেপির ঘোষিত প্রার্থী তরুণ সাহা। তিনি আজ প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর বলেন, কোথাও ভুল হয়েছে। বিজেপির লোকজন এসেছিল প্রস্তাব নিয়ে। কিন্তু তিনি এই মুহূর্তে দলবদল করছেন না এবং বিজেপিতে যোগও দেননি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এর আগেও প্রার্থী তালিকা নিয়ে বিক্ষোভে রাজ্য নেতৃত্বের উপরে যথেষ্ট ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অমিত শাহ৷ শিখা মিত্রের ঘটনায় রাজ্য নেতৃত্বের ভূমিকা নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠে গেল৷ শিখা মিত্র এই নির্বাচনে বিজেপির হয়ে লড়াই করার ব্যাপারে সম্মতি না দিয়ে থাকলে, কীসের ভিত্তিতে তাঁর নাম প্রার্থী হিসেবে সুপারিশ করা হল, সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ইতিমধ্যেই৷

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.