বন্ধুসঙ্গ থেকে দূরে থাকার পরামর্শ বাড়ির! অভিমানী ছাত্রের আত্মহত্যার পরই পলাতক তিন বন্ধু

বন্ধুসঙ্গ থেকে দূরে থাকার পরামর্শ বাড়ির! অভিমানী ছাত্রের আত্মহত্যার পরই পলাতক তিন বন্ধু / নিজস্ব ছবি
বন্ধুসঙ্গ থেকে দূরে থাকার পরামর্শ বাড়ির! অভিমানী ছাত্রের আত্মহত্যার পরই পলাতক তিন বন্ধু / নিজস্ব ছবি

২২ বছর বয়সী এক যুবকের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে নদীয়ায়। গতকাল, শুক্রবার, ঘটনাটি ঘটে শান্তিপুর পৌরসভার অন্তর্গত দু নম্বর রেলগেট স্মৃতি নগর এলাকায়। যুবকটির নাম শুভঙ্কর সরকার। মনে করা হচ্ছে, বাড়ি থেকে অতিরিক্ত বন্ধুসঙ্গ ত্যাগ করতে বলার অভিমানেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন তিনি। যদিও এর পিছনে যুবকের তিন বন্ধুর হাত রয়েছে বলে মনে করছেন যুবকটির পরিবার৷ তাদের নামে পুলিশে অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। তবে তিন বন্ধু এখন পলাতক।

সূত্রের খবর, নদীয়ার শান্তিপুরের বাসিন্দা শুভঙ্কর দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র। পাশাপাশি কাপড়ের দোকানেও কাজ করতেন তিনি। কৃষ্ণ নামে দীক্ষিত হওয়ার পর থেকেই বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে মাঝেমধ্যেই বিভিন্ন মন্দিরে ঘুরতে যেতেন তিনি। তবে বাড়ির লোকজন বকাবকি করাতে বেশ কিছুদিন যাবৎ তা বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকেই সেই বন্ধু-বান্ধবেরা তাঁকে নানা উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলতে থাকেন। সেই সঙ্গে বিভিন্ন রকমের প্রলোভনের পাশাপাশি টাকাপয়সা সংক্রান্ত বিষয়েও বেশ চাপ দিতেন।

শুভঙ্করের কাকা জানান, গতকাল বিকেল নাগাদ তাঁকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় তাঁরই তিন বন্ধু৷ রাত্রি ১০ঃ৩০ নাগাদ বাড়িতে ফেরেন তিনি। এরপর পরিবারের কারোর সঙ্গেই কোনও কথা না বলে নিজের ঘরে চলে যান। বেশ কিছুক্ষণ পর পরিবারের লোকজন ঘরের ভেতরে গিয়ে দেখেন গলায় কাপড় দিয়ে ঝুলছেন শুভঙ্কর সরকার। তিনি আরও যোগ করেন, বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করে ফেরার পরই এই অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটিয়েছেন শুভঙ্কর। সেই সঙ্গে এও অভিযোগ করেন, এর সঙ্গে তাঁর তিন বন্ধুর অবশ্যই কোনও যোগসাজশ রয়েছে।

ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই তিন বন্ধুর নামে শান্তিপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে মৃত শুভঙ্কর সরকারের পরিবার। তবে ঘটনাটি ঘটার পর থেকেই পলাতক ওই তিন বন্ধু। আজ, শনিবার, শান্তিপুর থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে। দেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য রানাঘাট মহাকুমা হাসপাতালেও পাঠানো হয়েছে। একইসঙ্গে, লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তও শুরু করেছে শান্তিপুর থানার পুলিশ।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.