নদিয়ার শান্তিপুরে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য! প্রতিবাদে আগামীকাল এলাকায় ১২ ঘণ্টা বন্ধের ডাক বিজেপির

নদিয়ার শান্তিপুরে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য! প্রতিবাদে আগামীকাল এলাকায় ১২ ঘণ্টা বন্ধের ডাক বিজেপির
নদিয়ার শান্তিপুরে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য! প্রতিবাদে আগামীকাল এলাকায় ১২ ঘণ্টা বন্ধের ডাক বিজেপির / নিজস্ব ছবি

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়াঃ একুশের নির্বাচনের আগে জেলায় জেলায় অশান্তি, খুন, রক্তপাতের ঘটনা শুরু হয়ে গেছে। রাজ্যে প্রথম দফার ভোট শুরু হতে আর মাত্র মাঝে একটা দিন বাকি। তাঁর মধ্যেই চলছে রাজ্য জুড়ে অশান্তি।

আজ সকাল ৬ টা নাগাদ নদিয়ার শান্তিপুর থানার নৃসিংহপুর মেথিডাঙ্গা এলাকায় একটি চাষের কলাবাগান থেকে দুজন যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। প্রথমে এই মৃতদেহ দুটি দেখতে পান এলাকারই কৃষকরা। এরপরেই থানায় খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার করে।

এই কলাবাগানেই মৃতদেহ দুটি উদ্ধার হয়

সূত্রের খবর, ওই দুই যুবকের বাড়ি প্রায় ২ কিলোমিটার দূরে নৃসিংহপুর হাউসাইট কলোনি এবং বর্মন পাড়ায়। মৃত দুই যুবকের নাম দীপঙ্কর বিশ্বাস এবং প্রতাপ বর্মন। দুজনেরই বয়স কুড়ি থেকে পঁচিশ বছরের মধ্যে। জানা গিয়েছে, ওই দুই যুবক পেশায় ধানকল শ্রমিক। গতকাল রাতে, রাস্তার পাশে একটি মোটরসাইকেল রেখে ওই দুই যুবক কলাবাগানের মধ্যে কী করছিল তা জানা যায়নি। তবে, তাদেরকে কলাবাগানের মধ্যে দিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় টেনে নিয়ে যাওয়ার রক্তের দাগ লক্ষ্য করা যায় আজ সকালে।

সার্কেল ইন্সপেক্টর গৌরীপ্রসন্নবাবু জানিয়েছেন যে, ওই কলাবাগানের সামনে তাঁত কারখানা তৈরীর উদ্দেশ্যে সদ্য নির্মিত একটি তাঁত কারখানার চালু সিসি ক্যামেরার ফুটেজ থেকে এখনো পর্যন্ত কিছু তথ্য পাওয়া যায়নি এ বিষয়ে। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে উভয়েরই মোবাইল সুইচ অফ ছিল, মৃতদের থেকে উদ্ধারকৃত মোবাইল খতিয়ে দেখছে শান্তিপুর থানার পুলিশ।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দলীয় কর্মীদের কাছ থেকে সাংসদ জগন্নাথ সরকার জানতে পারেন, ওই দুই মৃত যুবকের মধ্যে, প্রতাপ বর্মন বিজেপির সক্রিয় কর্মী, ওই পরিবারের পক্ষ থেকেও সে কথাই জানানো হয়েছে, তবে অপরজনও তাঁদেরই সমর্থক বলে দাবি করেন জগন্নাথ সরকার।

এদিকে রানাঘাট দক্ষিণ জেলা বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি ভাস্কর ঘোষ, শহর মন্ডল একের বিজেপির সভাপতি বিপ্লব কর মৃতদেহ তাঁদের পরিবারকে দেখতে না দেওয়ার বিরুদ্ধে থানার সামনে অবরোধে বসেন। তাঁরা পুলিশের চরম উদাসীনতা এবং নিস্ক্রিয়তার অভিযোগ এনেছেন এই ঘটনা প্রসঙ্গে। অন্যদিকে, এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সাংসদ জগন্নাথ সরকার আগামীকাল শান্তিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে ১২ ঘন্টার বন্ধ ডেকেছেন।

আপনাদের মতামত জানাতে কমেন্ট করুন.