দাবি অনুযায়ী মেলেনি টাকা! আড়াই ঘণ্টা ধরে বৃহন্নলা আটকে রাখায় প্রাণ হারাল সদ্যোজাত

দাবি অনুযায়ী মেলেনি টাকা! আড়াই ঘণ্টা ধরে বৃহন্নলা আটকে রাখায় প্রাণ হারাল সদ্যোজাত
দাবি অনুযায়ী মেলেনি টাকা! আড়াই ঘণ্টা ধরে বৃহন্নলা আটকে রাখায় প্রাণ হারাল সদ্যোজাত

দাবি অনুযায়ী টাকা না মেলায় সদ্যোজাত শিশুকে আড়াই ঘণ্টা ধরে আটকে রাখল বৃহন্নলা। তার জেরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল শিশু। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে মালদহের মানিকচকে। ঘটনার জেরে এলাকা জুড়ে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। অভিযুক্ত বৃহন্নলাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গিয়েছে, মানিকচকের বাঙাল গ্রামের বাসিন্দা মাম্পি মাঝি গত ২৯ অক্টোবর মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে তিন যমজ সন্তানের জন্ম দেন। এর মধ্যে দুটি পুত্র সন্তান ও একটি কন্যা সন্তান। বুধবার টাকার বিনিময়ে শিশুদের আশীর্বাদ করতে বাড়িতে হাজির হয় বৃহন্নলারা। পরিবারের দাবি, ১২০০ টাকা চেয়ে বসে তারা। কিন্তু এত টাকা দিতে পারেননি মাঝি পরিবার। তা বৃহন্নলাদের জানিয়ে নগদ ৫০০ টাকা ও কিছু বাসন দেয় পরিবার।

দাবি অনুযায়ী মেলেনি টাকা! আড়াই ঘণ্টা ধরে বৃহন্নলা আটকে রাখায় প্রাণ হারাল সদ্যোজাত
দাবি অনুযায়ী মেলেনি টাকা! আড়াই ঘণ্টা ধরে বৃহন্নলা আটকে রাখায় প্রাণ হারাল সদ্যোজাত

কিন্তু তারপরও একটি পুত্র সন্তানকে মায়ের কাছ থেকে কেড়ে নিয়ে বৃহন্নলারা টাকা আদায়ের জন্য চাপ দেওয়া হতে থাকে বলে অভিযোগ। শিশুটিকে প্রায় আড়াই ঘণ্টা নিজেদের কাছে রেখে দেয় বৃহন্নলারা। দীর্ঘসময় তাকে খেতেও দেওয়া হয়নি। উলটে তাকে কোলে নিয়ে ঢাক-ঢোল বাজানো হয়৷ তার জেরেই অসুস্থ হয়ে পড়ে শিশুটি। দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর যখন শিশুটিকে মায়ের কাছে দেওয়া হয়, ততক্ষণে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছে সে।

এরপরই স্থানীয় মানিকচক থানায় খবর দেওয়া হয়। সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় অভিযুক্ত বৃহন্নলাকে। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। বৃহন্নলাদের অত্যাচারের জেরেই কি শিশুটি প্রাণ হারিয়েছে? তা খতিয়ে দেখবে পুলিশ। অন্যদিকে, জন্মের মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই শিশুটির এহেন পরিণতিতে কান্নায় ভেঙে পড়েছে পরিবার। দোষীর কোঠর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।